গোপালগঞ্জে অরক্ষিত লেভেলক্রসিংয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে ৫ নির্মাণশ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যুতে লক্ষ্মীপুর গ্রামে মাতম চলছে। বৃহস্পতিবার রাতে পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই ওই ৫ শ্রমিকের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। গভীর রাতে লক্ষ্মীপুর ও পারুলিয়া গ্রামে নেওয়া হয়। লাশ ওই দু’গ্রামে পৌঁছানোর পর স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে দীঘরগাতী সার্বজনীন শশ্মানে শোকাবহ পরিবেশে ৪ জনের মরদেহ দাহ করা হয়। এছাড়া এ ঘটনায় নিহত পারুলিয়া গ্রামের রাজ্জাক সিকদারের লাশ দাফন করা হয়েছে। নিহতরা সবাই নির্মাণশ্রমিকের কাজ করতেন। তারা এলাকায় দিনমজুর হিসেবে পরিচিত।

নিহতদের কারও সংসারেই সচ্ছলতা নেই। তাদের এ মর্মান্তিক মৃত্যু স্বজন ও এলাকবাসী মেনে নিতে পারছে না। অরক্ষিত এ লেভেলক্রসিং-এ গেট ও গেটম্যান না থাকার কারণে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানিয়েছে কাগদী গ্রামের সবুজ সিকদারসহ অন্যান্যরা। এলাকাবাসী ওই লেভেলক্রসিং-এ গেট ও গেটম্যান দেওয়ার দাবি জানান।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) রাত সড়ে ৯টায় কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নের (কাঠামদরবোস্ত) কাগদী লেভেলক্রসিংয়ে  কংক্রিট মিক্সার মেশিন ট্রেনের ধাক্কায় ওই ৫ শ্রমিক ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ ঘটনার পর প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। নিহতদের পরিবারপ্রতি ১০ হাজার টাকা করে সহায়তা দিয়েছে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসন।

গোপালগঞ্জে ফায়ার সার্ভিসের ডিএডি আবুল কালাম আজাদ জানান, বৃহস্পতিবার রাতে ফরিদপুরের বোয়ালমারী এলাকার নির্মাণাধীন ভবনের ঢালাইয়ের কাজ করে কংক্রিট মিক্সার মেশিন নিয়ে ১৪ জন শ্রমিক কাশিয়ানীর পারুলিয়ায় নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। এ সময় মিক্সার মেশিন বহন করা গাড়ি (কাঠামদরবোস্ত) কাগদী লেভেলক্রসিং পার হবার সময় লাইনে উঠলে রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা গোপালগঞ্জের গোবরাগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি ওই গাড়িকে ধাক্কা দেয়।

‘এতে মিক্সার মেশিনসহ গাড়িটি খাদে পড়ে যায়। এতে কাশিয়ানী উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রামের সুজন মৃধা, পরিতোষ দাস, অমৃত বিশ্বাস, হিরামন বিশ্বাস ও একই উপজেলার পারুলিয়া গ্রামের রাজ্জাক সিকদার ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত হন বসার মিয়া নামের আরেক শ্রমিক।’ যোগ করেন তিনি।

খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে। আহত একজনকে প্রথমে কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ফরিদপুর মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ওই কর্মকর্তা। আহত আরও ৩ জন কাশিয়ানী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

গোপালগঞ্জর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নিহাদ আদনান তাইয়ান জানিয়েছেন, দুর্ঘটনার কারণ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। রাজবাড়ী রেলওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদ আলম বলেন, অরক্ষিত লেভেলক্রসিংগুলোতে গেট ও গেটম্যান দেওয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হবে।

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার ইউএনও মেহেদী হাসান জানান, নিহতদের পরিবার প্রতি ১০ হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দেয়া হয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে গোপালগঞ্জ থেকে রাজশাহী যাবার পথে একই ট্রেনে কাটা পড়ে আবু তালেব মোল্লা (৬০) নামে আরও এক বৃদ্ধ নিহত হন।