কিশোরগঞ্জের ভৈরবে নেশার টাকা নিয়ে বাগবিতণ্ডায় অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করেছেন জাহিদ হাসান (২১) নামের এক যুবক। ছুরিকাঘাতে অনাগত সন্তানের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে পৌর এলাকার নিউটাউন এলাকায়।

জানা যায়, স্বামী জাহিদ হাসানের ছুরিকাঘাতে স্ত্রী মিতু বেগম (১৯) গুরুতর আহত হয়। মিতু সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। আহত মিতু বেগমকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেওয়া হলে আজ অনাগত শিশু মৃত্যুবরণ করে। মিতু বেগমের অবস্থাও এখন সংকটাপন্ন।

জাহিদ হাসান উপজেলার সম্ভুপুর গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে। তারা ভৈরব পুর দক্ষিণ পাড়া এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতেই মিতু বেগমের মা পারভিন বেগম বাদী হয়ে ভৈরব থানায় একটি মামলা করলে পুলিশ জাহিদকে গ্রেপ্তার করে। আজ শুক্রবার সকালে তাকে কিশোরগঞ্জ আদালতে চালান দিয়েছে পুলিশ।

মামলার এজাহার ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত দুই বছর আগে দুজনের বিয়ে হয়। জাহিদ প্রায়ই নেশা করে স্ত্রীকে মারধোর করতেন। অনেক সময় নেশার টাকা পেতেও স্ত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করতেন। বৃহস্পতিবার রাতে নেশার টাকার জন্য স্ত্রীকে চাপ দেয় সে। এ নিয়ে বাগবিতণ্ডা হলে তাকে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত করে।

ভৈরব ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক শ্যামল মিয়া জানান, ঘটনার খবর পেয়ে তাদের বাসায় গিয়ে জাহিদ হাসানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ ঘটনায় মিতুর মা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলাটি তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।