পটুয়াখালীর দুমকিতে প্রতিপক্ষের ছাগল জবাই করার ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মো. রেজাউল হক রাজনকে (৫০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ সময় তার বাসার ফ্রিজ থেকে ছাগলের পাঁচ কেজি মাংসও জব্দ করা হয়।

এর আগে বুধবার রাতে এ ঘটনায় উপজেলার আঙ্গারিয়া এলাকার মো. আবু গাজী (৬০) বাদী হয়ে দুমকি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর রাতেই রাজনকে গ্রেপ্তার করে পুলি। বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে পাঠানো হয়। রাজন একই এলাকার মৃত নূরুল হক হাওলাদারের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আবু গাজী ও রাজনের মধ্যে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছে। বুধবার সকালে বাড়ির পাশে জমিতে বাঁধ দেওয়া নিয়ে উভয়ের মধ্যে বাক-বিতণ্ডা হয়। রাজন প্রতিপক্ষকে হুমকি-ধামকি দেন। বিকেলে আবু গাজীর একটি খাসি ছাগল ধরে নিয়ে জবাই করেন রাজন। ছাগলটির মূল্য ছিল ১২ হাজার টাকা। ছাগলটি জবাই করার সময় বাধা দিলে রাজন অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং নানা ধরনের হুমকি-ধামকি দেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওযামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, ছাগলটি রাজনের কৃষি জমির ক্ষতি করেছে। তাই পোলাপান ধরে এনে জবাই করেছে। এতে কি মামলা হয়? মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ দিয়ে এ মামলা করা হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী আলমগীর বলেন, ঘটনা সত্য হলে তার (রেজাউল হক রাজন) বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দুমকি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুস সালাম জানান, এ ঘটনায় আবু গাজী বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। অভিযুক্ত রাজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।