লালমনিরহাট বিভাগীয় রেলওয়ে স্টেশন থেকে মাত্র ৪০০ মিটার দূরে শহরের ব্যস্ততম লেভেলক্রসিং বিডিআর গেট। এই ক্রসিংয়ে দুটি রেললাইন রয়েছে। এর একটি দিয়ে মোগলহাট রেল স্টেশন (বর্তমানে পরিত্যক্ত) ও অন্য রেলপথ দিয়ে পাটগ্রামের বুড়িমারী রেল স্টেশনে মালবাহী ও যাত্রীবাহী ট্রেন যাতায়ত করে থাকে। দুই লাইনের জন্য রয়েছে আলাদা গেট বেরিয়ার।

রোববার বিকেলে দায়িত্বরত গেটম্যান ভুল করে যে লাইন দিয়ে ট্রেন পার হবে সেটির গেট বেরিয়ার না নামিয়ে পার্শ্ববর্তী মোগলহাট রেললাইনের বেরিয়ার নামিয়ে রাখেন। এতে মানুষ ও যানবাহন চলাচলকারী রেলপথ দিয়ে আকস্মিক যাত্রীবাহী ট্রেন প্রবেশ করে বুড়িমারীর উদ্দেশে চলে যায়।

এ সময় লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। আর অন্যপথে গেট বেরিয়ারে আটকা থাকে যানবাহন ও পথচারী। তবে ট্রেন আসতে দেখে মানুষ ও যানবাহন দ্রুত সরে যাওয়ায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায় তারা। এ ঘটনায় গেটম্যান নাদের হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করে রেল বিভাগ।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ ঘটনার ভিডিও ভারইরাল হলে রেল বিভাগের অব্যবস্থাপনার কথা বলে বিভিন্ন মন্তব্য করেন সচেতন মানুষ। এদিকে ঘটনার তদন্তে লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ট্রাফিক ইন্সপেক্টর শহির উদ্দিনকে প্রধান করে এক সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটি আগামী ৩ কার্যদিবসের তদন্ত রিপোর্ট জমা দেওয়ার কথা রয়েছে।

লালমনিরহাট বিভাগীয় রেল অফিস সূত্রে জানা যায়, দিনাজপুরের বিরল থেকে ছেড়ে আসা বুড়িমারীগামী যাত্রীবাহী ৭১ নম্বর ট্রেনটি  যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। বিডিআর লেভেলক্রসিংয়ের গেটম্যান নাদের হোসেন বলেন, তিনি শুনতে ভুল করেছেন। তবে পরবর্তী সময়ে দৌড় দিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাঁশি বাজিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

লালমনিরহাট বিভাগীয় রেলওয়ে ম্যানেজার শাহ সুফী নূর মোহাম্মদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গেটম্যানের ভুলের কারণে এমন ঘটনা ঘটেছে। ঘটনা সরেজমিনে তদন্ত করতে এক সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।