গ্রেপ্তার এড়াতে ভোলায় কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি পালন করেনি বিএনপি। এর পরিবর্তে নিহত স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মী আবদুর রহিমের আত্মার শান্তি কামনা ও আহতদের সুস্থতায় দোয়ার আয়োজন করে দলটি।

গ্রেপ্তার আতঙ্কে দলীয় নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ কর্মসূচি থেকে বিরত ছিলেন বলে দাবি করেছেন বিএনপি নেতারা।

গত রোববার বিদ্যুতের লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে ভোলা জেলা বিএনপির বিক্ষোভে নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান আবদুর রহিম। এ ঘটনার প্রতিবাদে ডাকা বিএনপির দুই দিনের কর্মসূচির শেষ দিন ছিল গতকাল মঙ্গলবার। এদিন সকাল ১১টায় জেলা পর্যায়ে বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দিয়েছিল কেন্দ্রীয় বিএনপি।

ভোলা জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীরের অভিযোগ, পুলিশের দাখিল করা দুটি মামলায় কয়েকশ নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে। পুলিশ বাড়ি বাড়ি তল্লাশির নামে বিএনপির লোকজনকে হয়রানি করছে। দলীয় কার্যালয় এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তাই নেতাকর্মীরা গ্রেপ্তার আতঙ্কে সকালের বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেননি।

মঙ্গলবার বাদ আসর জেলা বিএনপি কার্যালয়ে নিহত আবদুর রহিমের আত্মার মাগফেরাত ও ঢাকায় চিকিৎসাধীন গুরুতর আহত জেলা ছাত্রদল সভাপতি নূরে আলমসহ আহতদের সুস্থতা কামনায় দোয়া মোনাজাতে জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীরসহ বিপুলসংখ্যক কর্মী উপস্থিত থাকলেও গুরুত্বপূর্ণ অনেক নেতাই অনুপস্থিত ছিলেন।

পুলিশের দাবি, মামলার আসামি বা ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়, এমন কোনো নেতাকর্মীকে হয়রানি করা হচ্ছে না। হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বিএনপির পক্ষ থেকেও একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছে দলটি।

ঘোষিত কর্মসূচিকে ঘিরে মঙ্গলবার সকাল থেকেই শহরের মহাজনপট্টির জেলা বিএনপি কার্যালয়সহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় পুলিশ মোতায়ন ছিল।