চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার এক নারী ইউপি সদস্যকে সাবেক স্বামী ধর্ষণের চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ব্যর্থ হলে তাঁকে মারধর করা হয়। স্থানীয়রা পরে ওই নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ ঘটনায় কর্ণফুলী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই নারী ইউপি সদস্য।

স্থানীয়রা জানান, ওই নারী ইউপি সদস্যের সঙ্গে কয়েক মাস আগে স্বামী আবদুল গনির বিবাহবিচ্ছেদ হয়। তবে তাঁরা একই ভবনের পাশাপাশি ফ্ল্যাটে থাকেন। ইউপি সদস্য জানান, গত মঙ্গলবার বাসায় ঢোকার সময় আবদুল গনি নিজ ফ্ল্যাটে নিয়ে তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। ব্যর্থ হয়ে তাঁকে মারধর করে জখম করেন। পরে লোকজন গিয়ে তাঁকে আনোয়ারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখান থেকে তাঁকে চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। এখনও সেখানেই ভর্তি আছেন তিনি।

এ বিষয়ে কথা বলতে আবদুল গনির মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল করা হলেও তা বন্ধ পাওয়া গেছে।

কর্ণফুলী থানার এসআই মোবারক হোসেন জানান, নারী ইউপি সদস্যের লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। তাঁর সাবেক স্বামী গনিও একটি অভিযোগ দিয়েছেন। সেখানে তাঁর স্পর্শকাতর স্থানে চাপ দেওয়ার অভিযোগ করেছেন গনি।

কর্ণফুলী থানার ওসি দুলাল মাহমুদ জানান, দুটি অভিযোগ পেয়েছি। উভয়পক্ষের মধ্যে বিবাদ ও কথা কাটাকাটি হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।