সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরের চাঞ্চল্যকর দুলা মিয়া (২৬) হত্যা মামলায় একজনের আমৃত্যু এবং অন্য ৪ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার দুপুরে সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মহিউদ্দিন মুরাদ এই রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে উপজেলার সম্ভুপুর গ্রামের রহিদ উল্লার ছেলে হীরা মিয়া প্রকাশ ইজাজুলকে আমৃত্যু কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড এবং অনাদায়ে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়। অন্য আসামিদের মধ্যে দাওরাই গ্রামের মসকদ উল্লাহ্য়ের ছেলে আব্দুল মন্নাফ, একই গ্রামের আমরু মিয়ার ছেলে কয়েছ, রৈফত উল্লার ছেলে মসকুর ও নেছাওরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া একই গ্রামের আসামী নূর হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

আদালত ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০১ সালের ২৪ নভেম্বর গ্রামের ডোবায় মাছ ধরা নিয়ে জগন্নাথপুরের দাওরাই গ্রামের সফর আলী ও হীরা মিয়ার লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। গুরুতর আহত সফল আলী’র ভাতিজা দুলা মিয়া (২৬) কে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নেওয়ার সময় পথেই মারা যান তিনি।

এ ঘটনার দুইদিন পর একই বছরের ২৬ নভেম্বর ৩২ জনকে আসামি করে দুলা মিয়ার চাচা সফর আলীম জগন্নাথপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

আদালতে মামলার দীর্ঘ শুনানির সময় পাঁচজন আসামি মৃত্যুবরণ করেন। বাদী সফর আলীও মারা যান। এ মামলায় পলাতক রয়েছেন ১০ জন আসামি। আদালত ১৩ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে সোমবার এ মামলার রায় দেন।