চট্টগ্রামে আছিয়া খাতুন নামে এক নারীকে দিয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মিথ্যা মামলা দায়ের করার অভিযোগে ইন্দনদাতা নুর উদ্দিনকে কারাগারে পাঠায়েছেন আদালত। সোমবার চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ বিচারক ফেরদৌস আরার আদালত এ আদেশ দেন। এর আগে চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি মিথ্যা মামলার বাদী আছিয়া খাতুনকে কারাগারে পাঠান আদালত। নুর উদ্দিন ফটিকছড়ির ভুজপুর থানার আজিমপুর এলাকার কাজী বাড়ির কামাল উদ্দিনের ছেলে।

নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বেঞ্চ সহকারী কফিল উদ্দিন সমকালকে বলেন, আছিয়াকে দিয়ে একটি মিথ্যা মামলা করানোর দায়ে নুর উদ্দিন নামে এক আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। আজ আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেছিলেন নুর উদ্দিন। আদালত জামিন নামঞ্জুর করেন।

আদালত সূত্র জানায়, ২০২০ সালের আগস্ট মাসে ফটিকছড়ির ভুজপুরের কেএম এনায়েত উল্লাহর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেন আছিয়া খাতুন। আদালত তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দেন। কিন্তু বাদী কোনো সাক্ষ্যপ্রমাণ দিতে পারেননি। তদন্তে সত্যতা পাওয়া যায়নি উল্লেখ করে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেয় পিবিআই।

২০২১ সালের ৯ মার্চ আদালত পিবিআইয়ের প্রতিবেদনটি গ্রহণ করে অভিযুক্ত এনায়েত উল্লাহকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেন। ৩১ মে এনায়েত উল্লাহ বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এ তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করার অভিযোগে আছিয়া ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করেন। এ মামলায় আছিয়ার সহযোগী নুর উদ্দিনকেও কারাগারে পাঠালেন আদালত।