সুনামগঞ্জে বিআরটিসির বাস কাউন্টার স্থানান্তর ও সড়ক থেকে যাত্রী তুলার প্রতিবাদে সড়কে বাস রেখে প্রতিবাদ জানিয়েছে স্থানীয় বাস মালিক শ্রমিক সংগঠনগুলো।

শনিবার সকাল থেকে বিআরটিসির কাউন্টারের সামনে বাস রেখে সড়কের একাংশ দখলে নিয়ে নেয় তারা। সেখানে তারা সিলেট সুনামগঞ্জ সড়কে বিআরটিসি বাস প্রত্যাহারের দাবি তোলেন।পরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ১৫ আগস্ট পর্যন্ত কর্মসূচি স্থগিত করেন নেতারা।

জেলা বাস মালিক- শ্রমিক সংগঠনগুলো বলছে, বিআরটিসির বাস কাউন্টারের আগের জায়গা পরিবর্তন করে আব্দুজ জহুর সেতুর প্রবেশ দ্বারে নিয়ে এসেছে। সড়কের উপর বাস রেখে যাত্রী উঠানামা করানোর অভিযোগ তাদের। এ নিয়ে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেও সড়ক থেকে বাস সরিয়ে নিতে ব্যর্থ হন তারা। এ ঘটনার প্রতিবাদে স্থানীয় বাস মালিক সমিতি শনিবার থেকে নতুন বাস স্টেশনে বাস না রেখে সড়কের উপর রাখা শুরু করে। পরে  জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপে আগামী ১৫ আগস্ট বিকাল ৫ টা পর্যন্ত কর্মসূচি স্থগিত করেন নেতারা। সেখানে তারা পূর্বের জায়গায় কাউন্টার নেওয়া ও সিলেট সুনামগঞ্জ সড়কে বিআরটিসির বাস প্রত্যাহারের দাবি জানান।

বিআরটিসির স্থানীয় দায়িত্বশীলরা বলেছেন, সকাল থেকে তাদের গাড়ি চলতে বাঁধা দেয়া হয়েছে। পরে জেলা প্রশাসকের আহ্বানে আগামী ২ দিন বাস বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা। আগামী ১৫ আগস্ট জেলা প্রশাসক দু’পক্ষের সাথে বসে সমস্যার সমাধান করে দিবেন।

বিআরটিসি বাস কাউন্টারের দায়িত্বশীল ব্যক্তি শফিকুল ইসলাম ফরহাদ বললেন, এই এলাকায় কোনো কাউন্টার পাওয়া যাচ্ছে না। অনেক কষ্ট করে এই কাউন্টারটি ভাড়া নেওয়া হয়েছে। ঘর ভাড়া না দেওয়ার জন্য এই ঘরের মালিককে হুমকি দেওয়া হয়েছে। জেলা পরিষদের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে দু’টি কাউন্টার করেছিলাম, সেগুলো তারা ভেঙে দিয়েছে। আমাকে তারা প্রাণে মারার হুমকি দিয়েছে। সরকারি একটি গাড়ি নিয়ে শহরের কোনো জায়গায় স্থান পাচ্ছি না। আমি সরকারের সহযোগিতা কামনা করছি।

সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল হক বলেন, সিলেট সুনামগঞ্জে বিআরটিসি গাড়ি অনিয়মিতভাবে চলাফেলার প্রেক্ষিতে আমরা নয় তারিখে বসে ১৩ তারিখ পরিবহন ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের অনুরোধে ধর্মঘট প্রত্যাহার করে সড়কে গাড়ি রেখে প্রতিবাদ জানিয়েছি। আমরা পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী শনিবার সকাল থেকে সড়কে বাস রেখে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছি।

তিনি আরও বলেন, আজকে আবারও প্রশাসন আমাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে আগের জায়গায় বিআরটিসির বাস কাউন্টার নেয়া হবে। সে কারণ ১৫ আগস্ট বিকাল ৫ টা পর্যন্ত আমাদের সকল কর্মসূচি স্থগিত করেছি। ১৫ তারিখ বসে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রস্তাব করবো সিলেট সুনামগঞ্জ সড়কে বিআরটিসি বাস প্রত্যাহারের। যদি আমাদের দাবি মানা না হয়, তাহলে আমরা আবারও আন্দোলনে নামবো।

ফোনে যোগাযোগ করা হলে পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান , ১৫ তারিখ বিকালে সুনামগঞ্জ-সিলেটে পরিবহন চলাচল নিয়ে দুই পক্ষের সঙ্গে কথা বলা হবে। এর আগে পর্যন্ত কাউকে কোন কর্মসূাচ না দিতে অনুরোধ করা হয়েছে।