কুমিল্লার লাকসামে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী বিরতিহীন সোনারবাংলা ট্রেন অবরোধ করে আটকে দিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের মারধর ও হেনস্তার অভিযোগে মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) সন্ধ্যায ৬টায় লাকসাম জংশনে আসলে ট্রেনটি আটকে দেন শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যায়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা শেষে বিরতিহীন সোনারবাংলা ট্রেনে উঠেন। এ সময় তারা ট্রেনের টিকিট কাটার সময় পাননি। যে কারণে অনেক শিক্ষার্থী বিনা টিকেটে ট্রেনে উঠে পড়েন। ট্রেনে ওঠার পর ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষক (টিটিই) তাদের কাছে টিকিট চান। সেই সাথে তিনি জরিমানাসহ ডাবল টাকা চান। তাই শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্দ হয়ে যাযন।

এ সময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষকের বাগবিতণ্ডা হয়। তারপর টিটিই শিক্ষার্থীদের লাকসামে জোর করে নামানোর চেষ্টা করেন। পুলিশ ও আনসার সদস্যদের সাহায্যে শিক্ষার্থীদের নামিয়ে দিলে শিক্ষার্থীরা ওই ট্রেনের সামনেই রেললাইনে বসে ও শুয়ে পড়েন। পরে চালক ট্রেনটি আর সামনে নিতে পারেননি। রাত ৮টা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা রেললাইন ছাড়েনি বলে জানা গেছে।

স্টেশন মাস্টার শাহাবুদ্দিন জানান, ‘ট্রেনে বিনা টিকিটে ভ্রমণ করা শিক্ষার্থীদের ভাড়া আদায় করতে গেলে সংঘর্ষ লাগে। এখন তারা ট্রেনটি আটকে দিয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে আছেন লাকসাম সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহিতুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজা মতিন, লাকসাম থানার ওসি কোসিল মেজবাহ উদ্দিন, রেলওয়ে থানার ওসি জসিম উদ্দিন।’

এ বিষয়ে লাকসাম রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিনকে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।