ফরিদপুর সদর উপজেলায় মাথায় হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার ভোর রাত ৫টার দিকে শহরের অম্বিকাপুর খাদ্যগুদাম-সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় নিহত সাজেদা বেগমের (৪০) স্বামী লালন মোল্লাকে (৪৮) আটক করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কোতোয়ালি থানার এসআই জগন্নাথ জানান, স্বামী লালন নিজেই প্রতিবেশীকে খবর দিয়ে তার স্ত্রীকে হত্যার কথা বলেন। পরে এলাকাবাসী থানায় খবর দিলে পুলিশ দুপুর ১২টার দিকে লাশ উদ্ধার করে। এ সময় লাশের পাশেই স্বামী বসেছিল। ঘটনাস্থল থেকে এ সময় তারা হত্যার কাজে ব্যবহৃত একটি লোহার তৈরি ছেনি ও হাতুড়ি উদ্ধার করে।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে লালন বলেছে ভোর রাত ৫টার দিকে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে সে তার স্ত্রীর মাথার বাম কানের পাশে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে মাথার ভেতরে ঢুকিয়ে দেয়। কয়েকবার এ রকমভাবে আঘাত করে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে।

পেশায় অটোরিকশাচালক লালন মোল্লার বাড়ি ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার কামারখালী এলাকায়। তার স্ত্রী সাজেদার বাড়ি ফরিদপুর সদরের চাঁদপুর ইউনিয়নের ভারদি এলাকায়। শহরের আলীপুর মহল্লার অম্বিকাপুর খাদ্যগুদাম-সংলগ্ন একটি বাড়িতে তারা এক যুগ ধরে বসবাস করতেন।