চট্টগ্রাম ইপিজেডের মমতা মাতৃসদন-২ হাসপাতাল থেকে চুরি হওয়া নবজাতককে এক দিনের মাথায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় হাসপাতালটির তিন কর্মচারীসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

 মঙ্গলবার আনোয়ারা উপজেলার বারখাইন এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন— হাসপাতালের সুপারভাইজার মোরশেদ আলম (৪২), সিকিউরিটি গার্ড সেলিম (৩৯) ও আবুল কাশেম (৩০) এবং আনোয়ারা উপজেলার পূর্ব বারখাইন মল্লিক বাড়ির রিমন মল্লিক (২৬) ও চুরিতে অভিযুক্ত নারী শিমু দাশ (২০)।

পুলিশ সূত্র জানায়, গত শুক্রবার ওই হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শিশুটির জন্ম হয়। সোমবার সন্ধ্যায় নার্স সেজে ওয়ার্ডে যান এক নারী। ইনজেকশন দেওয়ার কথা বলে শিশুটিকে নিয়ে হাসপাতালের নিচে নামেন। পরে সিসিটিভির ফুটেজে দেখা যায়, এক নারী নবজাতক নিয়ে চলে যান।

এ ঘটনায় শিশুর বাবা হাসপাতালের তিন কর্মচারীর বিরুদ্ধে এবং অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে রাতেই মামলা করেন। পরে অভিযানে নেমে শুরুতে হাসপাতালের তিন কর্মচারীকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। এরপর আনোয়ারার পূর্ব বারখাইন থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

ইপিজেড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল করিম সমকালকে বলেন, গর্ভধারণের পাঁচ মাসের মাথায় গ্রেপ্তার শিমু দাশের গর্ভপাত হয়। এরপর থেকে তিনি শিশু দত্তক নেওয়ার জন্য বিভিন্ন হাসপাতালে ঘুরতেন। সোমবার হাসপাতালটির কর্মচারীদের সহায়তায় নবজাতককে চুরি করে আনোয়ারায় নিয়ে যান তিনি।