বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরকালে দুই দেশের সরকারপ্রধানের বৈঠক আশা জাগালেও 'তিস্তার কাঁটা' রয়েই গেছে। কুশিয়ারা নদীর পানি উত্তোলনের সমঝোতা হলেও ব্রহ্মপুত্র বেসিনের পানি প্রবাহের কী হবে-সেটাও অজানা থেকে গেল। এমনকি গঙ্গা পানি চুক্তির ভবিষ্যৎও ধোঁয়াশার মধ্যে রয়ে গেছে। তাই নদীর পানির প্রশ্নে বাংলাদেশ আশাবাদী হতে পারছে না।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে ওয়ার্কার্স পার্টির মতাদর্শ ও প্রশিক্ষণ বিভাগ আয়োজিত চীন বিপ্লবের মহানায়ক কমরেড মাও সেতুংয়ের ৪৬তম মৃত্যুদিবস উপলক্ষে 'জনগণতন্ত্র :তত্ত্ব ও প্রয়োগ' শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। দলের ৫০ বছর পূর্তিতে বছরব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই আলোচনা সভা করা হয়।

দেশে জ্বালানি তেল, গ্যাস-বিদ্যুৎ, চাল, সার, ভোজ্যতেলসহ নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধিতে ক্ষোভ প্রকাশ করে মেনন বলেন, মন্ত্রীরা চালের মজুত নিশ্চিতের কথা বলছেন। অথচ এখন মোটা চালের দামও ৬০-৬৫ টাকা। গোডাউনে সার থাকলেও সেটা কৃষকের কাছে না পৌঁছালে কোনো লাভ হবে না। সময় মতো সেচের পানি না পেলে ফসলের উৎপাদনও মার খাবে। মূল্যস্ম্ফীতি ক্রমেই বাড়ছে। বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারের ভূমিকা খুবই দুর্বল। সাধারণ মানুষের জীবনে নাভিশ্বাস তৈরি হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ওয়ার্কার্স পার্টির ২১ দফা কর্মসূচি 'জনগণতান্ত্রিক বিপ্লব'-এর আলোকে তৈরি। একে জনগণের মধ্যে নিয়ে যাওয়ার জন্য দলের নেতাকর্মীদের সক্রিয় হতে হবে।
দলের মতাদর্শ ও প্রশিক্ষণ বিভাগের প্রধান ড. সুশান্ত দাসের সভাপতিত্বে এবং পলিটব্যুরোর সদস্য কামরুল আহসানের সঞ্চালনায় সভায় মূলপত্র উপস্থাপন করেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শরীফ শামশির। আরও বক্তব্য দেন সমাজ গবেষক শামসুল হুদা।