চট্টগ্রাম করদাতা সুরক্ষা পরিষদের নেতাদের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার রাতে নগরের চান্দগাঁও, ডবলমুরিং ও বায়েজিদ বোস্তামী থানায় একটি মামলা ও দুটি জিডি করা হয়েছে। মামলার পর রাতেই পরিষদের সভাপতি নুরুল আবসারের কদমতলীর বাসায় অভিযান চালায় পুলিশ।

চান্দগাঁও থানায় পরিষদের সভাপতি নুরুল আবসারের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়রের ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) মোস্তফা কামাল চৌধুরী। এতে তিনি মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরীর বিরুদ্ধে মানহানিকর ও হুমকিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগ এনেছেন।

আর ডবলমুরিং ও বায়েজিদ বোস্তামী থানায় পরিষদের সভাপতি নুরুল আবসার, মুখপাত্র হাসান মারুফ রুমি ও মোহাম্মদ সৈয়দ আহমেদের বিরুদ্ধে জিডি করেছেন নগরের হিলভিউ আবাসিক এলাকার নুরুল আলম। এতে সিটি করপোরেশনের গৃহকর নিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে নগরবাসীকে বিভ্রান্ত করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

স্থাপনার ভাড়ার ভিত্তিতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্ধারণ করা গৃহকর বাতিলের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে চট্টগ্রাম করদাতা সুরক্ষা পরিষদ। দাবি আদায়ে আগামী শুক্রবার তাদের নগরীতে গণমিছিল কর্মসূচি রয়েছে। এই কর্মসূচি নস্যাতের জন্যই মামলা ও জিডি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিষদের মুখপাত্র হাসান মারুফ রুমি।

তিনি সমকালকে বলেন, পরিষদের সভাপতি চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় বক্তব্য দিয়েছেন। সেটিকে ভুলভাবে উপস্থাপন করে মামলা ও জিডি করা হচ্ছে। কিন্তু কোনো ষড়যন্ত্র আমাদের গণমিছিল থামাতে পারবে না।

চান্দগাঁও থানার ওসি মঈনুর রহমান বলেন, মামলা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পেয়ে আসামি গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হয়।

বায়েজিদ বোস্তামী থানার ওসি ফেরদৌস জাহান বলেন, সিটি মেয়রকে নিয়ে কটূক্তি ও হুমকির অভিযোগ এনে জিডি হয়েছে। তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এছাড়া ডবলমুরিং থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন জিডি নথিভুক্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন।