প্রতিবেশী যুবক ফোন করে উত্ত্যক্ত করত নারীকে। প্রতিবাদ করায় ওই যুবক হত্যার হুমকি দেয় নারীটিকে। এ বিষয়ে সন্ধ্যায় পুলিশের কাছে নালিশের পর ভোর রাতে নিজ ঘরে কুপিয়ে হত্যা করা হয় ওই নারীকে। এমন ঘটনা ঘটেছে ময়মনসিংহ নগরে।

ময়মনসিংহের আকুয়া জুবিলী কোয়ার্টার দক্ষিণপাড়া এলাকা থেকে সাথী আক্তার (৩৬) নামের এক নারীর মরদেহ শুক্রবার সকালে উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি ওই এলাকার প্রয়াত মোফাজ্জল হোসেনের মেয়ে। নিজ ঘরেই সাথীকে দুর্বৃত্তরা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে। 

বৃহস্পতিবার রাতের শেষ অংশে হত্যাকাণ্ড চালানো হয় বলে পুলিশ ধারণা করছে। স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হবার পর দশ বছর বয়সী মেয়ে নিরাকে নিয়ে বাবার বাসার পাশেই বসবাস করতেন সাথী। 

খবর পেয়ে পুলিশ, পিবিআই ও সিআইডির ক্রাইমসিন টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং আলামত সংগ্রহ করে। সাথীকে নিজ ঘরে কুপিয়ে হত্যার পর মোবাইল ফোনটি নিয়ে যায় হত্যাকারীরা। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। 

নিহত সাথীর ছোটবোন শিউলি আক্তার জানায়, প্রতিবেশী হৃদয় মিয়া (২৬) তার বোনকে মোবাইলে কল দিয়ে উত্যক্ত করত। এর প্রতিবাদ করায় বৃহস্পতিবার হৃদয় তার মামা বাবুল ও নিজের দলবল নিয়ে তার বোনকে হত্যার হুমকি দেয়। তার বোন বিষয়টি পুলিশকে জানিয়ে এলাকায় পুলিশ আনে। 

তিনি আরও জানান, হুমকিদাতারাই তার বোনকে হত্যা করেছে বলে ধারণা করছেন। 

এছাড়া জানা যায়, ঘটনার পর থেকে হৃদয়, বাবুলদের এলাকায় পাওয়া যাচ্ছে না। 

ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহ কামাল আকন্দ বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে থানায় এসে সাথী নিজের অভিযোগ জানালে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ পাঠানো হয়। শুক্রবার সকালে থানায় আসতে বলা হয়েছিল। এর মধ্যে ঘটনা ঘটে গেছে। এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করা হয়। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠনো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। কাউকে আটক করা যায়নি।