বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, আওয়ামী লীগের রাজনীতি হাইজ্যাক হয়ে গেছে। আওয়ামী লীগ সরকার আজ দেশ চালাচ্ছে না। এই সরকারের বিরুদ্ধে শিগগিরই আন্দোলনের রূপরেখা ঘোষণা করা হবে। সেই রূপরেখা অনুযায়ী আগামী নির্বাচনের আগে আন্দোলনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সরকারের পতন ঘটানো হবে।

শুক্রবার নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ স্টেডিয়ামে উপজেলা যুবদলের উদ্যোগে কুমিল্লায় বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু ও তাঁর স্ত্রী শামীমা বরকত লাকির ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
আমির খসরু বলেন, আগামী নির্বাচনে জনগণের কাছে জবাবদিহিমূলক সরকার গঠন করা হবে। আন্দোলনে বিন্দুমাত্র ছাড় দেওয়া হবে না। জনগণ রাস্তায় নেমে এসেছে। তারা তাদের ভোটের অধিকার আদায় করা ছাড়া বাড়ি ফিরে যাবে না। রাজপথে আন্দোলন করেই এ সরকারের বিদায় ঘণ্টা বাজানো হবে। আগামী নির্বাচন নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত হবে। এ সরকারের জনপ্রিয়তা কমে এসেছে। এ সময় তিনি প্রশাসনের কাছে অবিলম্বে বরকত উল্লাহর ওপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
উপজেলা বিএনপির সভাপতি কামাখ্যা চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান আবেদের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মো. শাহজাহান, বিএনপির উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, উপদেষ্টা জয়নুল আবেদিন ফারুক, বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম, ভিপি হারুন, অ্যাডভোকেট আবদুর রহমান, অ্যাডভোকেট এবিএম জাকারিয়া, মঞ্জুরুল আজিম সুমন, জহির উদ্দিন হারুন এবং সানিয়াত।