হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে ভূ-পর্যটক রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা ওয়াহেদ মিয়া নামে এক ব্যক্তি দখল করে রেখেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সেই বসতভিটা দখলমুক্ত করে সেখানে পাঠাগার ও বাইসাইকেল মিউজিয়াম গড়ে তোলার দাবি জানিয়েছে রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণ কমিটি। এদিকে, বসতভিটা দখলমুক্ত করার দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় হবিগঞ্জ থেকে রামনাথের বাড়ির পথে বাইসাইকেল র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে।

রোববার বিকেলে হবিগঞ্জ প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কমিটির নেতারা বলেন, কলকাতায় রয়েছে 'রামনাথ বিশ্বাস সড়ক', অথচ নিজভূমে তিনি হয়ে গেছেন পরবাসী। বানিয়াচংয়ে রামনাথের স্মৃতিবিজড়িত বাড়িটি দখল করে রেখেছেন আবদুল ওয়াহেদ মিয়া নামে আলবদর পরিবারের এক সদস্য।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন 'ভূ-পর্যটক রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণ কমিটি'র আহ্বায়ক ভূ-পর্যটক ও লেখক আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বল, যুগ্ম আহ্বায়ক কবি শাহেদ কায়েস ও রামনাথ বিশ্বাস ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক টিপু চৌধুরী। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক কথাসাহিত্যিক ও নাট্যকার রুমা মোদক।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, রামনাথ বিশ্বাস হবিগঞ্জের তো বটেই, গোটা বাংলার গর্ব। তিনি হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে সবাইকে ভালোবাসতেন। ১৯৪৬ সালের গ্রেট ক্যালকাটা দাঙ্গায় নিজের জীবন বাজি রেখে বাঁচিয়েছিলেন ৩৯ জন মুসলিমের জীবন।

দখলদার ওয়াহেদ মিয়া একসময় জামায়াত-বিএনপি করতেন উল্লেখ করে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ওয়াহেদ মিয়া পরে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে রীতিমতো ওয়ার্ড কমিটির সভাপতির পদও বাগিয়ে নিয়েছিলেন। দলীয় পরিচয়ের জোরে রামনাথের বাড়ি দেখতে যাওয়া পর্যটক, বাইসাইকেল রাইডার ও সাংবাদিকের ওপর বিভিন্ন সময় হামলা চালিয়েছেন।

কর্মসূচি: আয়োজকরা জানান, আজ সোমবার বিকেল ৪টায় বানিয়াচংয়ে ১ নম্বর ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে সাংবাদিক ও সুধীজনের সঙ্গে অনুষ্ঠিত হবে মতবিনিময়। আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় হবিগঞ্জ টাউন হল থেকে রামনাথের বাড়ির পথে বাইসাইকেল র‌্যালি হবে। ওইদিনই সকাল ১১টায় বানিয়াচং শহীদ মিনারে প্রতীকী অনশন করবেন সাংবাদিক দেবব্রত চক্রবর্তী বিষ্ণু। বাইসাইকেল র‌্যালিটি রামনাথের বাড়ি বিদ্যাভূষণ পাড়া ঘুরে এসে বানিয়াচং শহীদ মিনারে বিকেল ৪টায় সমাবেশ শেষে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবেন অংশগ্রহণকারীরা।