জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্র্রার্থী হওয়ায় জেলা আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি নুরুল হুদা মুকুটকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

সোমবার জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. নুরে আলম সিদ্দিকী উজ্জ্বল স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। তবে নুরুল হুদা এই সিদ্ধান্তকে অসাংগঠনিক দাবি করেছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গ ও দলের জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত অমান্য করায় গঠনতন্ত্রের ৪৭ (১১) ধারার ক্ষমতা বলে জেলার সহসভাপতি পদসহ দলীয় সকল পদ থেকে নুরুল হুদা মুকুটকে অব্যাহতি প্রদান করা হলো।

এ ব্যাপারে জেলা সভাপতি মতিউর রহমান বলেন, দলীয় সমর্থিত প্রার্থী ঘোষণার পরেও নুরুল হুদা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বিষয়টি গত রোববার দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে জানানো হয়। তাঁর নির্দেশনা অনুযায়ী তাঁকে দলের সকল পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে নুরল হুদা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির অনুমোদন ছাড়া জেলা কমিটির কোনো সদস্যকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করার এখতিয়ার জেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেই। তাই তাঁকে অব্যাহতি দেওয়ার চিঠিই অসাংগঠনিক। মূলত ভোটারদের বিভ্রান্ত করতে তাঁর বিরুদ্ধে এমন প্রপাগান্ডা চালানো হচ্ছে।

অন্যদিকে, সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বলেন, এই বিষয়ে তাঁর কিছু জানা নেই। কেন্দ্রীয় কোনো নির্দেশনাও তিনি পাননি। জেলা কমিটি কোনো সিদ্ধান্ত নিলে তা জেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছ থেকে জানতে হবে।