কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে গোপন ভিডিও ধারণ করে দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণের অভিযোগে আলামিন হোসেন (২৪) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

কুমারখালী থানায় ওই ছাত্রীর দাদীর করা মামলায় রোববার রাতে গাজীপুর থেকে অভিযুক্তকে আটক করা হয়।

আলামিন উপজেলার নন্দলালপুর ইউনিয়নের আলাউদ্দিন নগরের মুক্তার হোসেনের ছেলে।

সোমবার সকালে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব কুষ্টিয়া ক্যাম্পের কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার মোহাম্মদ ইলিয়াস খান এসব তথ্য জানান।

র‌্যাব ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীর সঙ্গে আলামিনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ওই ছাত্রীকে ফুসলিয়ে গত ৩ মার্চ আলামিন তার বাড়ীতে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এসময় আলামিন ও তার বন্ধুরা কৌশলে ভুক্তভোগীর ধর্ষণের ভিডিও ও নগ্ন ছবি ধারণ করে। পরে সেগুলো প্রকাশের ভয় দেখিয়ে আলামিন এবং তার বন্ধুরা ছাত্রীটিকে ব্ল্যাকমেইল করতে থাকে। এভাবে ভুক্তভোগীকে ৭ মাস ধরে ধর্ষণ করে আসছিল আলামিন।

এক পর্যায়ে ওই ছাত্রী ঘটনাটি তার দাদীকে জানালে তিনি আলামিনকে ভিডিওটি ডিলিট করতে অনুরোধ জানান। কিন্তু আলামিন ও তার বন্ধুরা সেটা করতে অস্বীকৃতি জানায়। ভুক্তভোগীকে ভয় দেখিয়ে আবারও ধর্ষণ করতে চাইলে ছাত্রীর দাদী বাদী হয়ে গত ২২ সেপ্টেম্বর মামলা করেন।

এ মামলায় র‌্যাব-১২'র একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাকে কুমারখালী থানায় সোপর্দ করলে আদালতের মাধ্যমে অভিযুক্তকে কারাগারে পাঠানো হয়।