লঞ্চ ও পন্টুনের মাঝে চাপা পড়ে পঙ্গুত্বের পথে রিনা আক্তার (২৯) নামের এক নারী। তার বাম পা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে চামড়ার সঙ্গে ঝুলে আছে বলে জানা গেছে। বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার উলানিয়ার কালীগঞ্জ লঞ্চঘাটে রোববার রাত ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

রিনা আক্তার দক্ষিণ উলানিয়া ইউনিয়নের মৃত কামাল রাঢ়ীর স্ত্রী। তিনি তার মাকে ঢাকাগামী লঞ্চে তুলে দিতে গিয়ে এ দুর্ঘটনার শিকার হন। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নোয়াখালীর হাতিয়া থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী ফারহান-৪ লঞ্চ রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে কালীগঞ্জ লঞ্চঘাটে পৌঁছায়। এসময় যাত্রীরা তাড়াহুড়ো করে লঞ্চে উঠার সময় রিনার বাম পা লঞ্চ ও পন্টুনের মাঝে চাপা পড়ে। এতে পা প্রায় বিচ্ছিন্ন হয় চামড়ার কিছু অংশের সঙ্গে ঝুলে থাকে। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে রাতেই তাকে বরিশাল শেরে বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতাল ও পরবর্তীতে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যান স্বজনরা। 

মেহেন্দিগঞ্জ থানার উপ পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম জানান, হুড়োহুড়ি করে লঞ্চে উঠতে গিয়ে রিনা আক্তার দুর্ঘটনার শিকার হন। এ ঘটনায় নারীর পরিবার থেকে থানায় কোন অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ পেলে লঞ্চের কর্মচারীদের কোন গাফিলতি আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে।