সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রচারে ভোট ও ভোটারের চেয়ে বেশি আলোচনা চলছে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে শোকজ এবং নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ- এ দুই বিষয় নিয়ে।
সম্প্রতি দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল হুদা মুকুটের সহধর্মিণী, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুসনা হুদাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক ও সুনামগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ড. জয়া সেনগুপ্তার বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল হুদা মুকুট। গত রোববার সন্ধ্যায় তিনি এই আবেদন করেন।
মুকুটের আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক নির্বাচনী এলাকায় বিশেষ করে ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলায় অবস্থান করে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী খায়রুল কবির রুমেনের ঘোড়া মার্কার প্রচারে অংশ নিয়েছেন।
একই দিন পৃথক অভিযোগপত্রে সংসদ সদস্য ড. জয়া সেনগুপ্তার বিরুদ্ধেও খায়রুল কবির রুমেনের ঘোড়া মার্কার প্রচারে অংশ নেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। আচরণবিধি লঙ্ঘন করায় এই দুই সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান মুকুট।
এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক বলেন, 'জেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাহারের আগে জেলা কমিটির সভায় পাঁচ এমপির উপস্থিতিতে আলোচনা হয়েছিল। এর পর এই সংক্রান্ত কোনো আলোচনা হয়নি। আমি দলের নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত ব্যবস্থা নেওয়ার অপেক্ষায় আছি। বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করছি, এটা শুনতেও খারাপ লাগে।' এদিকে জয়া সেনগুপ্তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগও সত্য নয় বলে দাবি করেছেন সাধারণ সম্পাদক এম এনামুল কবির ইমন। বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এনামুল কবির ইমন জেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী খায়রুল কবির রুমেনের ছোট ভাই।
অন্যদিকে, দল সমর্থিত প্রার্থীর বদলে নিজের স্বামীর পক্ষে প্রচারে অংশ নেওয়ায় জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুসনা হুদাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। তবে নুরুল হুদা মুকুট জানান, তার স্ত্রী কোথাও তার নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেননি।
এর আগে গত ৩০ জানুয়ারি কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছিল নুরুল হুদা মুকুটের ছোট ভাই জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক খায়রুল হুদা চপলকে। যার জবাবে চপল তার ভাইয়ের নির্বাচনী প্রচারে অংশ না নেওয়ার কথা জানান।