ঢাকা বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ গেল বাবা-ছেলেসহ ৩ জনের

ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ গেল বাবা-ছেলেসহ ৩ জনের

.

 সমকাল প্রতিবেদক ও টাঙ্গাইল প্রতিনিধি 

প্রকাশ: ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ০০:২৬

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে থামে একটি বাস। তখন যাত্রীরা নেমে রেললাইনে হাঁটাহাঁটি করছিলেন। পেছন থেকে ট্রেন এলে কাটা পড়ে বাবা-ছেলেসহ তিনজন নিহত হন। তারা হলেন রতন মিয়া ও তাঁর ছয় বছরের ছেলে সানি; অন্যজনের নাম শরীফ। তাদের সবার বাড়ি নাটোরে। 

গতকাল শুক্রবার রাত সোয়া ৮টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব প্রান্তে কালিহাতী উপজেলার আনালিয়া বাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব রেলস্টেশনের ইনচার্জ রেজাউল করিম বলেন, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা নীলফামারীর চিলাহাটিগামী চিলাহাটি এক্সপ্রেসে কাটা পড়ে তারা মারা গেছেন।

জানা যায়, উত্তরবঙ্গ থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী একটি বাস ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কালিহাতীর আনালিয়া বাড়িতে পৌঁছলে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। এ সময় যাত্রীরা বাস থেকে নেমে রেললাইন ধরে হাঁটিহাঁটি করতে থাকেন। আকস্মিক দ্রুতগামী ট্রেন চলে এলে তারা হতভম্ব হন এবং কাটা পড়েন। 

টাঙ্গাইল রেলওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক আলী আকবর জানান, বাস থেকে নেমে অসতর্কভাবে হাঁটিহাঁটির সময় কাটা পড়ে তাদের মৃত্যু হয়েছে। একজনের দেহ দ্বিখণ্ডিত হয়ে যায়। তাদের সবার বাড়ি নাটোর বলে জানা গেছে।

ট্রেনে উঠতে গিয়ে পড়ে নারীর মৃত্যু
চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে পা পিছলে পড়ে লাইলী বেগম (৪০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে ছেলের সামনেই মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। 

ঢাকা রেলওয়ে থানার ওসি ফেরদাউস আহমেদ বিশ্বাস সমকালকে বলেন, লালমনিরহাটগামী লালমনি এক্সপ্রেসে বাড়ি যাওয়ার কথা ছিল লাইলী বেগমের। এজন্য ছেলে হৃদয় হোসেন তাঁকে নিয়ে কমলাপুর রেলস্টেশনে আসেন। তারা যখন প্ল্যাটফর্মে পৌঁছান, তখন ট্রেন চলতে শুরু করে। এর পরও দৌড়ে ওঠার চেষ্টা করেন। শেষ মুহূর্তে ট্রেনের দরজা দিয়ে ওঠার সময় পা পিছলে পড়ে যান। এ সময় তাঁর মাথা ট্রেনের নিচে চলে যায়। 
ওসি জানান, স্বজনের আবেদনে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ হস্তান্তর করা হয়। মৃতের স্বামীর নাম জাহাঙ্গীর আলম। তাদের ছেলে হৃদয় হোসেন পেশায় রংমিস্ত্রি। তিনি নারায়ণগঞ্জে থাকেন। লাইলী ছেলের বাসায় বেড়াতে এসেছিলেন। 

 

আরও পড়ুন

×