চট্টগ্রাম নগরীর নিমতলা থেকে অলংকার মোড় পোর্ট কানেক্টিং (পিসি) সংযোগ সড়ক হিসেবে পরিচিত। এর দৈর্ঘ্য সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার। সড়কটি সংস্কার করতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) সময় লেগেছে পাঁচ বছর। অথচ দুই বছরে এ সংস্কার কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল।

সংস্কার শেষে বুধবার সড়কটির উদ্বোধন করেন সিটি করপোরেশনের মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী।

জানা যায়, চট্টগ্রাম বন্দরের আমদানি-রপ্তানি পণ্য পরিবহন হয় এ সড়ক ব্যবহার করে। ২০১৬ সালে সড়কটি বেহাল হয়ে পড়ে। পরে তা সংস্কারের উদ্যোগ নেয় সিটি করপোরেশন। ব্যয় ধরা হয় ১৭০ কোটি টাকা। চারটি প্রতিষ্ঠানকে ঠিকাদার নিয়োগ দেওয়া হয়।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে শুরু হয় সংস্কার কাজ। এরমধ্যে দুইটি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান মাঝপথে কাজ ফেলে চলে যায়। পরে ওই দুইটি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে নতুন ঠিকাদার নিয়োগ করে সিটি করপোরেশন। যথা সময়ে কাজ শেষ করতে না পারায় ১০ কোটি টাকা গচ্চা যায় সিটি করপোরেশনের। প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হয় ১৮০ কোটি টাকা।

সড়কটি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, ‌দীর্ঘ কয়েক বছর আগে সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু করা হলেও নানান জটিলতার কারণে যথাসময়ে কাজ সম্পন্ন হয়নি। তিনি বলেন, নগরীতে প্রথম এই সড়কে পথচারীদের নিরাপদ চলার জন্য আধুনিক প্রযুক্তির থ্রিডি জেব্রা ক্রসিং সংযুক্ত করা হয়েছে।

সিটি মেয়র বলেন, নগরীর সড়কগুলোর ধারণ ক্ষমতা ১০ থেকে ১২ টন ওজনের গাড়ি। কিন্তু বন্দরের পণ্য বহনকারী ট্রাক, লরিগুলো ২৫ থেকে ৩০ টন ওজনের মালামাল বহন করছে। এতে অল্প সময়ে মধ্যে সড়কগুলো চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

তিনি বলেন, চট্টগ্রাম দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী। দেশের রপ্তানী বাণিজ্যের সিংহভাগ পরিবহন হয় চট্টগ্রামের ওপর দিয়ে। এ সময় তিনি সড়কগুলো রক্ষণাবেক্ষণ ও সম্প্রসারণের দায়িত্ব চট্টগ্রাম বন্দরকে নেয়ার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র আফরোজা কালাম, কাউন্সিলর নুরুল আমিন, অধ্যাপক মোহাম্মদ ইসমাইল, মোহাম্মদ ইলিয়াছ, সংরক্ষিত কাউন্সিলর শাহনুর বেগম, হুরে আরা বিউটি, তসলিমা বেগম নুরজাহান, প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা ও সিটি মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী কামরুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবু ছালেহ, মনিরুল হুদা, ঝুলন কুমার দাশ, নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ার জাহান ও তৌহিদুল ইসলাম।