প্রতারণার অভিযোগে ব্রিটিশ বাংলাদেশি রন্ধনশিল্পী টমি মিয়া ও তাঁর প্রতিষ্ঠান টমি মিয়া’স হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব আহেমদ শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

বুধবার বাদীপক্ষের আইনজীবী মো. রুবেল মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, এ মামলায় সমন (নোটিশ) জারি হয়ে ফেরত আসায় আমরা আদালতে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন করলে বিচারক শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

এর আগে গত ২৬ জুন মামলাটি করেন প্রতিষ্ঠানটির সাবেক মার্কেটিং উপদেষ্টা এস এম আলী জাকের। ওই দিন আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আসামিদের আদালতে হাজির হতে সমন (নোটিশ) জারি করেছেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, আলী জাকের ২০২১ সালের ২৯ ডিসেম্বর টমি মিয়া’স হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটে চুক্তিভিত্তিক মার্কেটিং উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৩০ এপ্রিল মোট চার মাস কাজও করেন। তবে চুক্তি অনুযায়ী ৪ লাখ ২৮ হাজার টাকা পাওনা হলেও অভিযুক্তরা কোনও টাকা পরিশোধ করেননি। গত ২৯ মার্চ বাদী টাকা চাইলে আসামিরা তার প্রাণনাশের হুমকি দেন। সেদিনই তিনি বনানী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

এজাহারে বলা হয়, টাকা চেয়ে গত ১ জুন আসামিদের লিগ্যাল নোটিশ পাঠান আলী জাকের। এরপর আসামিরা টাকা না দেওয়ায় বাদী মামলা করেন।