বাগেরহাট জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম তানু ভূঁইয়া হত্যাকাণ্ডের মূল অভিযুক্ত ফরিদসহ (২৯) ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

শনিবার রাতে বাগেরহাট জেলা পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে। পরে গ্রেপ্তারকৃতদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করে পুলিশ।

রাতে নিহতের স্ত্রী কানিজ ফাতেমা বাদী হয়ে বাগেরহাট মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

বাগেরহাটের পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক বলেন, তানু ভূঁইয়া হত্যার ঘটনায় আমরা ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছি। রোববার বেলা পৌনে ১২টায় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে শুক্রবার রাত সোয়া ৯টার দিকে বাগেরহাট শহরের বাসাবাটি পদ্মপুকুরের মোড় এলাকায় ফরিদ নামের এক ব্যক্তির গুলিতে নিহত হন নুরে আলম তানু ভুঁইয়া। নিহত তানু ভুঁইয়া বাগেরহাট শহরের বাসাবাটি এলাকার মৃত আব্দুর রউফ ভুঁইয়ার ছেলে। তিনি বাগেরহাট জেলা ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

অভিযুক্ত ফরিদ বাসাবাটি এলাকার টুটুল শেখের ছেলে। ফরিদের নামে হত্যাসহ বিভিন্ন অপরাধে ৫টি মামলা রয়েছে। 

শনিবার দুপুরে নামাজে জানাজা শেষে সরুই কবরস্থানে দাফন করা হয় সাবেক এই ছাত্র নেতাকে।