সুনামগঞ্জসহ সিলেট বিভাগের চার জেলায় শুক্রবার ভোর ৬টা থেকে পরিবহন ধর্মঘট চলছে। বিএনপি বলছে, সিলেটে দলটির গণসমাবেশে যোগদান ঠেকাতে এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, চার দফা দাবিতে দুই দিনব্যাপী বাস ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে। এদিকে, সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের বিভাগীয় সমাবেশে বৃহস্পতিবার রাত থেকেই যাওয়া শুরু করেছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা।

সুনামগঞ্জ জেলা পরিবহন মালিক ও শ্রমিক সমিতি সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের লামাকাজি সেতুতে বাসের টোল প্রত্যাহার, ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা নিবন্ধনহীন সিএনজি বন্ধ, বিআরটিসি বাস বন্ধ ও সুনামগঞ্জ বাস টার্মিনাল সংস্কার করে আধুনিকায়নের দাবিতে শুক্রবার ভোর ৬টা থেকে শনিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ৩৬ ঘণ্টার এই ধর্মধটের ডাক দেয়। একই ধরণের নানা দাবিতে সিলেট বিভাগের হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও সিলেট জেলার পরিবহন মালিক শ্রমিকরা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। এ কারণে কেবল সমাবেশযাত্রী বিএনপি নেতাকর্মী নয়, সাধারণেরাও পড়েছে ভোগান্তিতে।

অসুস্থ মামাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দেখতে যাওয়ার জন্য সুনামগঞ্জ পর্যন্ত মোটরসাইকেলে এসেছেন তাহিরপুরের দক্ষিণ শ্রীপুরের উকিল আলী। শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে ১০টা পর্যন্ত অপেক্ষা করেও সিলেটে যাওয়ার কোনো বাস পাননি তিনি। বললেন, ‘আকতা (হঠাৎ) ধর্মঘট অইলে মানুষ কিলা (কেমনে) চলতো। আমার মামা চরকাত (মৃত্যু পথযাত্রী) অখন (এখন) কেমনে যাইতাম কইনছাইন।’ উকিল আলীর মতো অসংখ্য যাত্রীকে বাসস্টেশনে পরিবহনের অপেক্ষা করতে দেখা গেছে।

সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুল বলেন, ‘সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে জনস্রোত ঠেকাতে পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হলেও বিকল্প পথে সমাবেশে যাওয়া শুরু করেছে তাদের কর্মীরা।’

সুনামগঞ্জ জেলা বাস মিনিবাস মাইক্রোবাস মালিক সমিতির সভাপতি মোজাম্মেল হকের দাবি, এ ধর্মঘট রাজনৈতিক কারণে নয়। তিনি বলেন, ‘দাবি দাওয়া আদায়ের হরতাল চলছে।’

ধর্মঘট আহ্বানে তাদের কোনো হস্তক্ষেপ নেই দাবি করে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেন, ‘পরিবহনে নানা মতের লোকজন আছেন। অতীতের তিক্ত অভিজ্ঞতাও আছে তাদের। জ্বালাও পোড়াও ভাঙচুরের অভিজ্ঞতা থেকেই তারা নিশ্চয়ই ধর্মঘট আহ্বান করেছেন।’

জ্বালানি তেলসহ দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতে কেন্দ্রীয় বিএনপির আয়োজনে সিলেটের আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে আগামীকাল শনিবার দুপুর ১২টায় বিভাগীয় গণসমাবেশ ডেকেছে বিএনপি। এ সমাবেশের একদিন আগেই আজ শুক্রবার ভোর থেকে সিলেট বিভাগের চার জেলায় পরিবহন ধর্মঘট আহ্বান পালন করেছে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের বিভিন্ন সংগঠন।