ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় জমির সীমানার আল নিয়ে বিরোধে আবু রায়হান হাবলু হত্যা মামলায় দুই জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে ময়মনসিংহ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ চতুর্থ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ রাশেদ তালুকদার এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মুক্তাগাছার কাশিমপুর ইউনিয়নের জরিপুর গ্রামের কেরামত আলীল ছেলে দুলাল মিয়া (৫৮) ও তার ছেলে তানভীর আহমেদ ফরহাদ (৩০)। রায়ের সময় দুলালকে আদালতে তোলা হলেও অপর আসামি ফরহাদ পলাতক রয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, জেলার মুক্তাগাছা উপজেলার কাশিমপুর ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের দুলাল মিয়া ও ফয়জুর রহমানের সঙ্গে জমির সীমানা নিয়ে বিরোধ ছিল। ২০১৩ সালের ২৪ জানুয়ারি বিকেলে জমির আল কাটা নিয়ে তাদের মধ্যে বাগবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে দন্ডপ্রাপ্তরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে ফয়জুর রহমানকে। বাবাকে বাঁচাতে ছেলে আবু রায়হান হাবলু ছুটে গেলে তাকে দা দিয়ে কোপানো হয়। রক্তাক্ত অবস্থায় হাবলুকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে ঢাকায় নেওয়ার পথে মারা যান হাবলু। এ ঘটনায় নিহতের বাবা ফয়জুর রহমান মুক্তাগাছা থানায় ৫ জনকে আসামি করে মামলা করলে পুলিশ দুলাল ও ফরহাদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে।

আদালতে সরকারি পক্ষে আইনজীবি সঞ্জীব কুমার সরকার ও আসামি পক্ষে এ এইচ এম খালেকুজ্জামান মামলাটি পরিচালনা করেন।

আইনজীবি সঞ্জীব কুমার সরকার বলেন,  দীর্ঘ শুনানিতে আদালত ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করে। বিচারিক কার্যক্রম শেষে মঙ্গলবার দুপুরে বাবা-ছেলেকে যাবজ্জীবনে কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়। বাবা উপস্থিত থাকলেও ছেলের বিরুদ্ধে সাজা পরোয়ানা জারি করা হয়।