আগামী শনিবার (২৬ নভেম্বর) কুমিল্লা টাউন হল মাঠে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ অনুষ্ঠানে ১০ শর্তে অনুমতি দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। আজ মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লা জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের পক্ষে সিনিয়র সহকারী কমিশনার রাজিব চৌধুরী সাক্ষরিত ওই অনুমতিপত্র দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব জসিম উদ্দিন সমকালকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ১০ শর্তের অন্যতম হচ্ছে মাইক সীমিত রাখা ও মিটিং-মিছিল না করা।

সমাবেশের অনুমতির অন্যসব শর্ত হচ্ছে- দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও সামাজিক ধর্মীয় মূল্যবোধ, রাষ্ট্রীয় ভাবমূর্তি ও জাতীয় নিরাপত্তা বিঘ্নিত হয় এমন বক্তব্য রাখা যাবে না। ব্যানার-ফেস্টুন ইত্যাদি ব্যবহার সীমিত করতে হবে। ব্যানার-ফেস্টুন, পতাকা স্ট্যান্ড হিসেবে কোনো লাঠি ব্যবহার করা যাবে না। সমাবেশ বিকেল সাড়ে ৪টার মধ্যে শেষ করতে হবে। মাইকের ব্যবহার সীমিত রাখতে হবে, উচ্চ শব্দে তা ব্যবহার করা যাবে না। যানবাহনসমূহ শহরের ভেতরে প্রবেশ করানো যাবে না। রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশের কর্মসূচি পালন থেকে বিরত থাকতে হবে। মোটর শোভাযাত্রা ও মিছিল করা যাবে না। সমাবেশে অংশগ্রহণের জন্য নেতাকর্মীদের আসা-যাওয়ার পথে কোনো প্রকার নাশকতাপূর্ণ কর্মকাণ্ড তথা আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে এরূপ কর্মকাণ্ড করা যাবে না। সমাগত নেতাকর্মীরা যাতে কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে নেতাদের তথা আয়োজকদের সেই দায়িত্ব নিতে হবে। মঞ্চ তৈরিতে যারা জড়িত তারা ছাড়া অন্য কেউ সমাবেশ শুরু পূর্বে সমাবেশস্থলে প্রবেশ কিংবা অবস্থান করতে পারবে না।

বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (কুমিল্লা বিভাগ) মোস্তাক মিয়া সমকালকে বলেন, ‘পরিবেশ পরিস্থিতিতে অনেক কিছুই করতে হয়। এতসব শর্ত মেনে বিশাল একটি সমাবেশ করা সম্ভব না। তবে আমরা সুশৃঙ্খল ও শান্তিপূর্ণভাবে এ সমাবেশ সফল করতে সাংগঠনিকভাবে ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি।’