নাটোরের লালপুরে ইমো হ্যাক করে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে সাত প্রতারককে আটক করেছে র‌্যাব। এসময় তাদের কাছ থেকে নয়টি মোবাইল ফোন, নগদ ১৫ হাজার ৪০০ টাকা ও দুই বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার বিলমাড়িয়া বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। শুক্রবার সকালে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

আটককৃতরা হলো উপজেলার মোহরকয়া গ্রামের শাহাবুল ইসলামের ছেলে মেহেদী হাসান (২৪), একই গ্রামের ইয়াসিন আলীর ছেলে রবি (২২), মোহরকয়া (খাঁ-পাড়া) গ্রামের মঞ্জুর রহমানের ছেলে মোহন সরকার (১৯), মনিহারপুর গ্রামের মাজদার প্রামানিকের ছেলে শিমুল আলী (১৯), ভাঙ্গাপাড়া গ্রামের নূর আলম সরকারের ছেলে শাহ পরান সরকার (১৯), নাগসোসা গ্রামের রিফাজ মন্ডলের ছেলে রুবেল মন্ডল (৩২) এবং বাঘা উপজেলার মৃত শামসেদ মন্ডলের ছেলে বেলাল মন্ডল (২৯)।

র‌্যাব জানায়, আটককৃতরা দীর্ঘদিন থেকে পরস্পরের যোগসাজসে ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস এবং ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে প্রবাসীদের পরিচিতদের ইমা হ্যাক করে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে আসছিল। এমন প্রতারণার স্বীকার ভুক্তভোগী মনিরুল ইসলামের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তথ্যপ্রযুক্তি ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে নাটোর র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরহাদ হোসেন ও কোম্পানি উপ-অধিনায়ক সহকারী পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলামের নেতৃতে একটি অভিযানিক দল উপজেলার বিলমাড়িয়া বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৯টি মোবাইল ফোন, নগদ ১৫ হাজার ৪০০ টাকা এবং দুই বোতল ফেন্সিডিলসহ প্রতারক চক্রের সাতজনকে আটক করে।

এ ঘটনায় আটককৃতদের বিরুদ্ধে লালপুর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ এর ২০/২৪/৩৪/৩৫ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। এছাড়া মাদক উদ্ধারের ঘটনায় র‌্যাব বাদী হয়ে লালপুর থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করেছে।