চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) 'চিকা মারা'কে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের পর সব হলের দেয়াল লিখন মুছে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। রোববার বিকেলে হলের 'চিকা মারা' মুছে দেয় প্রক্টরিয়াল বডি। 

গত শুক্রবার রাতে এ এফ রহমান হলে ‘চিকা মারা’কে কেন্দ্র করে শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। এতে উভয়পক্ষের ১২ জন নেতাকর্মী আহত হন। বিবাদমান দুটি গ্রুপ হলো ভার্সিটি এক্সপ্রেস (ভিএক্স) ও বিজয়। শুক্রবার রাতে সংঘর্ষ চলাকালীন রামদা ও অস্ত্র নিয়ে এ.এফ. রহমান হলে মহড়া দেওয়ার সময় সহকারী প্রক্টর শাহরিয়ার বুলবুল ও সাংবাদিকদের উপর রামদা নিয়ে চড়াও হয় এই দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা। এছাড়া হলের কয়েকটি রুমও ভাঙচুর করে তারা। 

এ বিষয়ে সহকারী প্রক্টর গোলাম কুদ্দুস বলেন, ‘সংঘর্ষের ঘটনার প্রেক্ষিতে আমরা সব হল থেকে দেয়াল লিখন মুছে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছি। এখন পরিস্থিতি শান্ত আছে। হলের দেয়ালে আর কাউকে নতুন করে চিকা মারতে দেওয়া হবে না।’  

ভার্সিটি এক্সপ্রেস গ্রুপের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি প্রদীপ চক্রবর্তী বলেন ,'সংঘর্ষের ঘটনার পর আমরাই কর্তৃপক্ষকে আবেদন জানাই হয় সব চিকা থাকবে , নয়তো সব মুছে দিতে হবে। প্রশাসনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলের পরিবেশ সুন্দর রাখার জন্য এটি একটি ভালো উদ্যোগ।'

চিকা মুছে দেওয়ার ব্যাপারে বিজয় গ্রুপের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইলিয়াছ সমকালকে বলেন , 'কর্তৃপক্ষ যদি হলের পরিবেশ সুন্দর রাখার জন্য এই কাজ করে তাহলে আমি সাধুবাদ জানাই। কিন্ত যদি প্রক্টরলীগ তার নিজের বাহিনীর নাম না মুছে শুধু বিজয় গ্রুপের নাম মুছে থাকে তাহলে আমরা প্রক্টরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।'