হাতে অস্ত্র। কোমরে হ্যান্ডকাপ। বেশভূষাও পুলিশের। ঘুরে বেড়ান প্রাইভেট কার নিয়ে। ডিবি পরিচয়ে সুযোগ বুঝে ছিনতাই থেকে অপহরণ— সব করে বেড়ান তারা। দেশজুড়ে ঘুরে ঘুরে করেন এসব অপকর্ম। গত মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রাম নগরীর সদরঘাট থানার আইস ফ্যাক্টরি রোডে পুলিশের হাতে ধরা পড়েন। তাদের কাছ থেকে একটি পাইপগান, দুটি কার্তুজ, একটি পুলিশ লেখা হ্যান্ডকাপ, একটি ছোরা ও একটি প্রাইভেটকার উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার চারজন হলেন- চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার বড়কুল গ্রামের প্রয়াত ফজলুল হকের ছেলে মো. ইসমাইল হোসেন সোহাগ (৪১) ও তার ছোট ভাই মো. রবিউল ইসলাম ওরফে মো. সুমন আহম্মেদ (৩৮), কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার মঠপাড়া গ্রামের মো. মতিয়ার রহমানের ছেলে মো. রাশেদুজ্জামান রাশেদ (৪৩) ও লক্ষীপুরের রামগঞ্জ থানার নয়নপুর গ্রামের প্রয়াত আব্দুল মান্নানের ছেলে মিরাজ হোসেন ওরফে বাবু (৩৫)।

সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খায়রুল ইসলাম সমকালকে বলেন, 'আমাদের কাছে খবর আসে, একদল লোক প্রাইভেটকার নিয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে দুটি দল পাঠানো হয়। অভিযান চালিয়ে চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি পাইপগান, দুটি কার্তুজ, একটি পুলিশ লেখা হ্যান্ডকাপ, একটি ছোরা ও একটি প্রাইভেটকার উদ্ধার করা হয়েছে।

ওসি আরও বলেন, তাদের মধ্যে রবিউল ওরফে সুমনের বিরুদ্ধে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন থানায় সাতটি, তার ভাই সোহাগের বিরুদ্ধে তিনটি ও রাশেদের বিরুদ্ধে তিনটি মামলা রয়েছে। তারা দেশজুড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে ডাকাতি, ছিনতাই, প্রতারণা ও মাদক ব্যবসা করে আসছিল।