রাজশাহী রেলস্টেশনে থাকেন ৬৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ আক্কাস আলী। বাড়ি মোহনপুরে। দুই মেয়ে ও স্ত্রী থাকেন গ্রামের বাড়িতে। এখানে ভিক্ষাবৃত্তি করেন আক্কাস আলী।

বুধবার রাতে তিনি বলেন, ‘স্টেশনেই থাকি। শীতের কাপড় নেই। পুরনো একটা কম্বল গায়ে দিয়ে স্টেশনে রাত কাটাই। এবার কোনো কম্বল ও শীতের কাপড় পাইনি। চেয়ারম্যান-মেম্বাররা নাম লিখে নিয়ে যায় কিন্তু কম্বল দেয় না। বাড়িতে বউ-মেয়ে আছে তারাও কিছু পায়নি। বউ অসুস্থ সেজন্য বাড়িতেই থাকতে হয় তাকে। আমি প্রতিবন্ধী, এদিকওদিক দৌঁড়াতে পারি না। সেজন্য কিছু পাই না।’

আক্কাস আলী বলেন, ‘যেসব শীতের কাপড় আছে ওসব দিয়ে শীত কাটে না। রাতে ঘুম আসে না। রাতের চেয়ে দিনে একটু বেশি ঘুমাই। শীত কম থাকে সেজন্য। আমার বয়স ৬৪ বছর কিন্তু ভোটার আইডিতে বয়স ৫১ বছর হয়ে আছে। বয়স্ক ভাতাও পাই না। পা খোঁড়া, প্রতিবন্ধী হিসেবেও কোনো টাকাপয়সা পাই না। এজন্য ভিক্ষা করেই খাই। রাতে স্টেশনে ঘুমাই।’