স্বাধীনতার পক্ষের সব শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে মত-পথের পার্থক্য থাকতে পারে। তবে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের প্রশ্নে সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে।

গতকাল মঙ্গলবার টাঙ্গাইলের বিন্দুবাসিনী সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাছে কাদেরিয়া বাহিনীর অস্ত্র জমাদানের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মুক্তিযুদ্ধের বীরত্বগাথা ভূমিকার জন্য বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর প্রশংসা করে মোজাম্মেল হক বলেন, কাদের সিদ্দিকীই একমাত্র ব্যক্তি, যিনি বেসামরিক থেকে দেশের সর্বোচ্চ বীরউত্তম খেতাব পেয়েছেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বঙ্গবীর প্রতিবাদ না করলে বাঙালি জাতি কলঙ্কিত থাকত। বঙ্গবীরকে অতীতের ভুলভ্রান্তি মতপার্থক্য ভুলে গিয়ে আগামীতে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

এ সময় কাদের সিদ্দিকী বলেন, দেশের পটপরিবর্তনের ফলে টাঙ্গাইলে আজ অনেকেই এমপি হয়েছেন। কিন্তু তাঁদের এমপি হওয়ার কোনো যোগ্যতা নেই।

কাদেরিয়া বাহিনীর বেসামরিক প্রশাসক আবু এনায়েত করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস এমপি, কবি বুলবুল খান মাহবুব, কবি আল মুজাহিদী, বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকীর স্ত্রী নাছরিন কাদের সিদ্দিকী, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান খোকা তালুকদার বীরপ্রতীক প্রমুখ।