বরিশাল নগরীর কেডিসি এলাকায় সার বোঝাই কার্গো থেকে কীর্তনখোলা নদীতে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে বলে কার্গোর মাস্টার ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে। 

নিহত শ্রমিকের নাম মো. ফরিদ (২৮)। তিনি পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি  উপজেলার শাহ আলমের ছেলে। ফরিদ সার বোঝাই এমভি ম্যাক্সফালা কার্গোর শ্রমিক ছিলেন। 

কার্গোর মাস্টার জাকির হোসেন জানান, মোংলা থেকে ৪ দিন আগে ইউরিয়া সার নিয়ে তারা কীর্তনখোলা নদীর নগরীর কেডিসি এলাকায় বিএডিসির ঘাটে এসে পৌঁছান। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পন্টুনের উত্তর পাশ থেকে এক লোককে পানিতে পড়ে যেতে দেখেন অন্য শ্রমিকরা। প্রথমে ঘাটের কোনো শ্রমিক ভেবেছিলাম। কিছুক্ষণ পর শ্রমিকরা এসে জানান ফরিদকে পাওয়া যাচ্ছে না। আশপাশে খুঁজে না পেয়ে ৯৯৯ এ কল করা হয়। ফায়ার সার্ভিস এসে রাত ৮ টায় পন্টুনের নিচ থেকে মরদেহ উদ্ধার করে। 

বাংলা‌দেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন ব‌রিশাল জেলার সাধারণ সম্পাদক ক‌বির হো‌সেন বেপারী ব‌লেন, দুর্ঘটনবশত ওই শ্রমি‌কের মৃত‌্যু হ‌য়ে‌ছে। ফায়ার সা‌র্ভিস মরদেহ উদ্ধার ক‌রে‌ছে।

বরিশাল ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক বেলালউদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে ডুবুরি নিয়ে সন্ধ্যা ৭টায় উদ্ধারে নেমে পড়েন। এক  ঘণ্টার চেষ্টায় পন্টুনের নিচ থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহ কার্গোর মাস্টারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। কার্গোতে ১৫-২০ দিন আগে শ্রমিক হিসেবে চাকুরি নিয়েছিলেন ফরিদ।