ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর

মোটরসাইকেল ৩ কিমি নিয়ে গেল ট্রেন, প্রবাসীর মৃত্যু

মোটরসাইকেল ৩ কিমি নিয়ে গেল ট্রেন, প্রবাসীর মৃত্যু

দুর্ঘটনাকবলিত মোটরসাইকেলটি। ছবি: সমকাল

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) সংবাদদাতা

প্রকাশ: ২৯ মার্চ ২০২৪ | ২০:৫৫

দু’মাস আগে বাড়িতে আসেন মালয়েশিয়া প্রবাসী মুকুল হোসেন (৩৫)। পরিবারের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করে আবার দেশটিতে ফেরার কথা ছিল তাঁর। চার মাসের এই ছুটিতে বিয়েটাও সেরে ফেলতে চেয়েছিলেন। এ জন্য চলছিল পাত্রী দেখা। তবে শুক্রবার এক দুর্ঘটনা সবকিছু শেষ করে দিয়েছে। রেললাইন পার হওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু হয়েছে মোটরসাইকেল আরোহী মুকুলের। এতে নিমেষেই পরিবারটির ঈদের আনন্দ বিষাদে পরিণত হয়েছে। 

শুক্রবার সকালে জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে হলহলিয়া রেল ব্রিজের দক্ষিণ পাশের অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মুকুল উপজেলার সোনামুখী ইউনিয়নের হাজরাপাড়া গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে। তিনি খালার বাড়িতে ঈদের সেমাই-চিনি দিয়ে ফেরার পথে দুর্ঘটনায় পড়েন। তাঁর মোটরসাইকেল তিন কিলোমিটার দূরে নিয়ে যায় ট্রেন। মোটরসাইকেলটি দুমড়েমুচড়ে গেছে।

পরিবার, প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার গণিপুরে খালার বাড়িতে ঈদের বাজার দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন মুকুল। পথিমধ্যে হলহলিয়া রেল ব্রিজের দক্ষিণ পাশের অরক্ষিত লেভেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় রেললাইনের ওপরে তাঁর মোটরসাইকেলটি বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় চিলাহাটি থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী চিলাহাটি এক্সপ্রেস ট্রেন ধাক্কা দিলে রেললাইনের পাশে ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলেই মুকুলের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আটকে যাওয়া মোটরসাইকেলটি নিয়ে ট্রেনের ইঞ্জিন তিন কিলোমিটার দূরে জাফরপুর রেলস্টেশন এলাকায় গিয়ে থামে। স্থানীয়রা দুমড়েমুচড়ে যাওয়া মোটরসাইকেলটি ট্রেনের ইঞ্জিন থেকে অপসারণ করে। 

নিহতের বড় ভাই আব্দুল লতিফ বলেন, মুকুল মালয়েশিয়ায় ছিল। প্রায় দুই মাস আগে আমাদের সঙ্গে ঈদ করতে বাড়িতে আসে। আমরা তার বিয়ের জন্য পাত্রী খোঁজ করছিলাম। খালার বাড়িতে ঈদের বাজার দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে ট্রেনের ধাক্কায় তাঁর মৃত্যু হয়েছে। আমাদের ঈদের আনন্দ এখন বিষাদে পরিণত হয়েছে। 

আক্কেলপুর রেলস্টেশনের মাস্টার খাতিজা খাতুন বলেন, চিলাহাটি এক্সপ্রেস ট্রেনের ধাক্কায় এক মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যুর খবর পেয়েছি। বিষয়টি রেল পুলিশকে জানানো হয়েছে। সান্তাহার রেলওয়ে পুলিশের ওসি মোক্তার হোসেন বলেন, ট্রেনের ধাক্কায় নিহতের মরদেহ স্থানীয়রা দুর্ঘটনার পরপরই বাড়িতে নিয়ে যান। রেল পুলিশের কয়ে সদস্য ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং এ ঘটনায় রেলওয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। 

আরও পড়ুন

×