বাগেরহাটের মোংলা রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চলের (ইপিজেড) ‘ভিআইপি লাগেজ’ নামের ট্রাভেল ব্যাগ তৈরির কারখানায় আগুনে প্রায় দেড়শ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। মঙ্গলবার রাতে মোংলা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন ভিআইপি ইন্ডাস্ট্রিস বাংলাদেশ প্রাইভেট লিমিটেডের সহকারী ব্যবস্থাপক আশীস কুমার কর্মকার।

জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে, অজ্ঞাত কারণে মঙ্গলবার দুপুরে পুরো ফ্যাক্টরিতে আগুন ধরে যায়। তাৎক্ষণিক ফায়ার সার্ভিসের একাধিক ইউনিট আগুন নেভাতে কাজ শুরু করে। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফ্যাক্টরিতে আগুনে আনুমানিক ১৫০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের বাগেরহাট কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক মো. গোলাম সরোয়ার বুধবার সকালে মুঠোফোনে জানান, আগুন এখনো পুরোপুরি নেভেনি। কিছু জায়গায় আগুন জ্বলছে। তবে ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণে রাখায় আশপাশে আর কোথাও ছড়িয়ে পড়ার শংকা নেই।

বাগেরহাট জেলা পুলিশের গণমাধ্যম শাখার সমন্বয়ক পুলিশ পরিদর্শক এস এম আশরাফুল আলম বলেন, মঙ্গলবার বেলা তিনটার পর ভিআইপি লাগেজ ফ্যাক্টরির ১ নম্বর প্লান্টে আগুন লাগে। সেখানকার কাঁচামালের গুদাম থেকে আগুন ছড়ায় বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। লাগেজ তৈরির পলিথিন, ফোম, বিভিন্ন রাসায়নিক আঠা, ফেব্রিক ও অন্যান্য পলিথিন জাতীয় দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন দ্রুত সময়ের মধ্যে পুরো ফ্যাক্টরিতে ছড়িয়ে পড়ে।

এর আগে ২০২০ সালের ২৮ ডিসেম্বর মোংলা ইপিজেডের একটি সুতার কারখানায় আগুন লেগেছিল। সেবার আগুন নিয়ন্ত্রণে একদিন সময় লেগেছিল। তবে এবারের আগুনে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক বেশি।