মারামারিতে অংশ না নেওয়ায় দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) আট শিক্ষার্থীকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। একই সঙ্গে তাঁদের হল ছাড়ারও আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান হলের ১৭তম ব্যাচের আট শিক্ষার্থী হল সুপারের কাছে এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

 অভিযোগপত্রে তাঁরা বলেছেন, গত ১০ মার্চ আনুমানিক রাত ১১টায় তাঁদের নির্যাতন করেন হলের ৩০৭ নম্বর কক্ষে অবস্থানরত অছাত্র শাহ আলম শিকদার (১৪তম ব্যাচ)। এ ঘটনায় হলের আসন ও নিজেদের নিরাপত্তা দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন আট শিক্ষার্থী।

ভুক্তভোগীরা জানান, বেশ কিছু দিন আগে হলের মধ্যে মারামারি হয়েছিল। ওই মারামারিতে অংশ না নেওয়ায় তাঁদের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালান শাহ আলম। সেই সঙ্গে তাঁদের হল ছেড়ে চলে যেতে বলেন। তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত শাহ আলমের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

হল সুপার অধ্যাপক আবু সাঈদ জানান, গত শনিবার আট শিক্ষার্থী লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ বিষয়ে প্রশাসনের সর্বোচ্চ মহলের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। হলে অনুষ্ঠান থাকায় বিষয়টি নিয়ে বসতে পারেননি তাঁরা। এ নিয়ে আজ অথবা ১৬ মার্চ নাগাদ বসা হবে। এরপর তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টর অধ্যাপক মামুনুর রশিদ জানান, আট শিক্ষার্থীর অভিযোগের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট হল সুপার জানিয়েছেন। নিয়ম অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।