বগুড়ার আদমদীঘিতে আবু বক্কর ছিদ্দিক ওরফে জলিল (৫৮) নামে শাপলা হাউসের এক নৈশপ্রহরীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বুধবার ভোর ৪টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান তিনি।

আবু বক্কর ছিদ্দিক সদর ইউনিয়নের শিবপুর দক্ষিণপাড়ার রইছ উদ্দিনের ছেলে। ছেলের দাবি, তার বাবাকে হত্যা করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার শিবপুর দক্ষিণপাড়ার আবু বক্কর ছিদ্দিক ওরফে জলিল ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কাছে শাপলা পাম্প হাউসে নৈশপ্রহরীর কাজ করতেন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে পাম্প হাউসে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। পরে তাকে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন উদ্ধার করে প্রথমে আদমদীঘি হাসপাতাল ও পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার ভোরে আবু বক্কর ছিদ্দিক মারা যান।

আবু বক্করের ছেলে নাইমের দাবি, তার বাবাকে ওই পাম্পে ডিউটিরত অবস্থায় কেউ বিষাক্ত কিছু খাইয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, এ ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।