ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

শর্টসার্কিট থেকে আগুন

‘মেয়ের স্বর্ণের গহনা কেনার জন্য আলু বিক্রির টাকা ছিল ঘরে, সব পুড়ে গেছে’

‘সামনে ঈদ, এখন ছেলে-মেয়েদের নিয়ে কি করব?’

পুড়ে যাওয়া টাকা। ছবি: সমকাল

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৫ এপ্রিল ২০২৪ | ১৭:৫১

‘প্রতিবেশীরা এসে গরু দু’টি বের করে। মেয়ের স্বর্ণের গহনা কেনার জন্য আলু বিক্রির ৬০ হাজার টাকা ঘরে ছিল। সব পুড়ে গেছে। সামনে ঈদ। এখন ছেলে-মেয়েদের নিয়ে কি করবেন, ভেবে পাচ্ছেন না। চোর চুরি করলে অনেক কিছু থাকে। কিন্তু আগুনে পুড়ে গেলে কিছুই থাকে না।’ কথাগুলো বলছিলেন জয়পুরহাটের কালাইয়ের গৃহিণী মেরিনা খাতুন। 

বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার হাটশেখা গ্রামের মৃত আব্দুল বারিকের বাড়িতে আগুন লেগে পুড়ে গেছে বসতবাড়ি ও টাকাসহ সবকিছু। অল্পের জন্য দু’টি গরু বেঁচে গেলেও আগুনে বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে পরিবারটির। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে ফায়ার সার্ভিস। পরিবারের সদস্যরা জানান, ইফতারের পর গরমের কারণে বাড়ির সবাই একটি আম গাছের নিচে বসে ছিলেন। এরইমধ্যে মৃত আব্দুল বারিকের স্ত্রী মেরিনা খাতুন হাতপাখা নিতে বাড়ির ভেতরে গিয়ে ঘরে আগুন দেখতে পান। তখন তিনি চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে নেভানোর চেষ্টা করেন এবং ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন। 

কালাই ও জয়পুরহাট ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট আগুন নেভানোর আগেই বসতবাড়ি, ৬০ হাজার টাকা, আলু, ধান, চাল ও আসবাবপত্রসহ সবকিছু পুড়ে যায়। এতে কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন।

কালাই ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা শাহ আলম বলেন, আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। যে রাস্তা দিয়ে দ্রুত আসা যেত, সে রাস্তায় কাজ চলছে। অন্য রাস্তা হয়ে ঘটনাস্থলে যেতে বেশি সময় লেগেছে। ক্ষতির পরিমাণ তাৎক্ষণিকভাবে বলতে পারেননি তিনি।

আরও পড়ুন

×