ঢাকা বুধবার, ২২ মে ২০২৪

কমেছে পাসের হার, জিপিএ ৫

কমেছে পাসের হার, জিপিএ ৫

ফলের অবনতির মাঝেও আলো ছড়িয়েছে সুনামগঞ্জের এসসি বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সমকাল

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১২ মে ২০২৪ | ২৩:১১

মাধ্যমিক পরীক্ষায় পর্যায়ক্রমে নিচের দিকে নামছে সুনামগঞ্জের ফল। ২০২২ ও ২০২৩ সালের তুলনায় এবার গড় ফল আরও নিচে নেমেছে। কমেছে পাসের হার ও জিপিএ ৫ প্রাপ্তির সংখ্যা।
সুনামগঞ্জে এ বছর একক প্রতিষ্ঠান হিসেবে জিপিএ ৫ প্রাপ্তির দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে আছে সরকারি সতীশ চন্দ্র (এসসি) বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। এই বিদ্যালয়ের ৬২ জন শিক্ষার্থী জিপিএ ৫ পেয়েছে। আর সবচেয়ে খারাপ ফল সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার বুলচান্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের।
জেলায় এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ২৩ হাজার ৭০৪। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৭ হাজার ৬৩৮ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৬৪৫ জন শিক্ষার্থী। জিপিএ ৫ প্রাপ্তদের মধ্যে ছেলে ২৮৪ এবং মেয়ে ৩৬১ জন। পাসের হার ৭৪.৪১ শতাংশ। ২০২৩ সালে জেলায় পাসের হার ছিল ৭৫ দশমিক ৪৯ শতাংশ এবং জিপিএ ৫ পেয়েছিল ৬৫৬ জন শিক্ষার্থী। ২০২২ সালে পাসের হার ছিল ৭৯ দশমিক ৯৫ শতাংশ এবং জিপিএ ৫ পেয়েছিল ৬৬৮ জন শিক্ষার্থী। অর্থাৎ পাসের হার ও জিপিএ ৫ প্রাপ্তির সংখ্যা ক্রমান্বয়ে কমেছে।

এবার শতভাগ পাস করেছে জেলার ১১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে ৯টি প্রতিষ্ঠানই ছাতক উপজেলার। জিপিএ ৫ প্রাপ্তির দিক দিয়েও এগিয়ে রয়েছে ছাতক। এই উপজেলা থেকে ২৪১ জন জিপিএ ৫ পেয়েছে। সুনামগঞ্জ পৌর শহরের সবচেয়ে প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ২৩১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ২২২ জন পাস করেছে। পাসের ৯৬.১০ শতাংশ, জিপিএ ৫ পেয়েছে ৫২ জন। শহরের অন্যতম বিদ্যাপীঠ সরকারি সতীশ চন্দ্র বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬২ জন শিক্ষার্থী জিপিএ ৫ পেয়েছে। পাসের হার ৮৬.৯৪ শতাংশ।
বুলচান্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের ফলাফল এবার হতাশ করেছে। সেখানে পাসের হার মাত্র ১৫.৫২ শতাংশ। এ ছাড়া আলোচিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে চৌদ্দগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭২.২২, এইচএমপি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৩.১৫, হামিদুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬৬.৬৭, জয়নগর বাজার হাজী গনিবক্স উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৯.০৭, নারায়ণতলা মিশন উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭৯.১৭ ও সুনামগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে ৭২.২৭ শতাংশ পাসের হার।
জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকসহ সবারই দায় রয়েছে ফলাফল অবনতির পেছনে। আগামীতে এই পরিস্থিতি উত্তরণে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।

আরও পড়ুন

×