ঢাকা শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

ছাত্রীকে ধর্ষণের স্বীকারোক্তি দুই আসামির

ছাত্রীকে ধর্ষণের স্বীকারোক্তি দুই আসামির

ফাইল ছবি

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১৪ মে ২০২৪ | ২৩:০৫

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলার খলাগাঁও গ্রামে এক ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ ও মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণের কথা আদালতে স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে দুই আসামি।

মঙ্গলবার দুপুরে দুই আসামি জিহাদ (১৯) ও সিয়াম খালাসিকে (১৮) আদালতে হাজির করলে বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইফতি হাসান ইমরান তাদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করেন। পরে তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মুন্সীগঞ্জ আদালত পুলিশের পরিদর্শক জামাল উদ্দিন।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা গত রোববার টঙ্গিবাড়ী থানায় অভিযোগ করেন। এরপরই পুলিশ সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে হাসাইল এলাকা থেকে জিহাদ ও সিয়ামকে আটক করে।

টঙ্গিবাড়ী থানার এসআই আল মামুন জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জিহাদ ও সিয়াম জানান, ভুক্তভোগী ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রায় দুই মাস ধরে অনৈতিক শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে তারা। তাদের মোবাইল ফোন জব্দ করে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার মামলা রুজু করে তাদের আদালতে পাঠানো হয়।

মুন্সীগঞ্জ আদালত পুলিশের পরিদর্শক জামাল উদ্দিন জানান, আদালতের নির্দেশে জিহাদ ও সিয়ামকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আসামিরা হলো, জিহাদ টঙ্গিবাড়ী উপজেলার খলাগাঁও গ্রামের মনির ব্যাপারীর ছেলে ও সিয়াম উত্তর হাসাইল গ্রামের শাহজাহান খালাসির ছেলে।

জানা গেছে, গত ঈদুল ফিতরের ৪ দিন পর সন্ধ্যার দিকে ভুক্তভোগী ছাত্রীকে উপজেলার খলাগাঁও এলাকার রাস্তার পাশের সরিষা ভাঙানোর মিলে নিয়ে প্রথমে সিয়াম ধর্ষণ করে। পরে সিয়ামের বন্ধু জিহাদ ধর্ষণ করলে সিয়াম মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করে। পরে সিয়াম ভিডিওটি অন্য একটি মোবাইল ফোনে পাঠালে তা ভুক্তভোগীর মায়ের নজরে আসে।


 

আরও পড়ুন

×