ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের মতবিনিময় সভা

প্রিপেইড মিটার নিয়ে অভিযোগের পাহাড়

ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের মতবিনিময় সভা

ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের মতবিনিময় সভা। ছবি: সমকাল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ

প্রকাশ: ১৫ মে ২০২৪ | ২১:২১

ময়মনসিংহ অঞ্চলে বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটার স্থাপন করা হচ্ছে। ২০১৩ সালে নেওয়া প্রকল্পের আওতায় সদর উপজেলায় পিডিবির নিজস্ব উদ্যোগে ২০ হাজার প্রিপেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছে। একটি সংস্থার মাধ্যমে আরও ৪৭ হাজার মিটার দেওয়া হয়েছে। এ কার্যক্রম শেষ হওয়ার আগেই তা প্রত্যাহার কিংবা আধুনিকায়নের দাবি তুলেছেন নাগরিকরা। শত শত সংখ্যার রিচার্জ নম্বর, অতিরিক্ত টাকা কেটে নেওয়াসহ নানা ভোগান্তি এখন নিত্যসঙ্গী। বিষয়টি নিয়ে নাগরিক সংগঠন ‘জনউদ্যোগের’ দাবির পরিপ্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বুধবার বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে নাগরিক নেতাদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে নানা অসন্তুষ্টি নিয়ে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য আনোয়ারুল ইসলাম, ময়মনসিংহ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক অমিত রায়, জনউদ্যোগের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম চুন্নু, সিপিবি নেতা অ্যাডভোকেট এমদাদুল হক মিল্লাত, অ্যাডভোকেট শিব্বির আহমেদ লিটন, নারী ফোরামের আহ্বায়ক সৈয়দা সেলিমা আজাদ, সমাজকর্মী আলী ইউসুফ, রাইস মিল মালিক সমিতির সভাপতি খলিলুর রহমান প্রমুখ।

তারা অভিযোগ করে বলেন, প্রিপেইড মিটার গ্রাহকদের ভোগান্তি বাড়িয়ে তুলেছে। টাকা লোড করতে গ্রাহককে ২০ থেকে ৩২০টি ডিজিট চাপতে হয়। টাকা লোড করার সঙ্গে সঙ্গে অতিরিক্ত বিল কেটে নেওয়া হচ্ছে। টাকা শেষ হলেই বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়। গ্রাহকের বিদ্যুৎ লোড সম্পর্কে ধারণা না থাকায় বিল বেশি যাচ্ছে। এ ছাড়া প্রিপেইড মিটার সম্পর্কে জনগণের উপকারিতা ও সচেতনতা তৈরির উদ্যোগ নেই। প্রযুক্তিটিও অত্যন্ত জটিল।

নাগরিকদের নানা প্রশ্নের জবাবে পিডিবির নির্বাহী প্রকৌশলী (দক্ষিণ) ইন্দ্রজিৎ দেবনাথ বলেন, ‘পদ্ধতিটা স্মার্ট না, বিষয়টি স্বীকার করে নিচ্ছি। ১৫০-২০০ সংখ্যা টিপতে হচ্ছে। কীভাবে সংখ্যা কমানো যায়, তা নিয়ে কাজ করব।’

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) এমদাদুল হক বলেন, সমস্যাগুলো দ্রুতই সমাধান করা হবে।

জেলা প্রশাসক দিদারে আলম মোহাম্মদ মাকসুদ চৌধুরী বলেন, মানুষ সহজ পদ্ধতি চাচ্ছে। মানুষের উদ্বেগ নিয়ে সংশ্লিষ্টরা কাজ করবে। বিষয়টি সরকারের উচ্চ পর্যায়েও জানানো হবে।
 

আরও পড়ুন

×