ঢাকা শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

শাবিপ্রবিতে দেড় বছরে তিন শ্রমিকের মৃত্যু

শাবিপ্রবিতে দেড় বছরে তিন শ্রমিকের মৃত্যু

প্রতীকী ছবি

 শাবিপ্রবি প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১৬ মে ২০২৪ | ০২:১৬

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) গত দেড় বছরে উন্নয়ন কাজে নিযুক্ত তিন শ্রমিক প্রাণ হারিয়েছেন। সর্বশেষ গতকাল বুধবার ক্যাম্পাসে নির্মাণাধীন লেক থেকে এক শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তাঁর নাম আলমগীর মিয়া। তিনি সিলেট নগরীর বিমানবন্দর থানার লাখাউরা বড়বাড়ির মৃত বারিক মিয়ার ছেলে। 

বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের মুক্তমঞ্চের পেছনে এক দোকানের কর্মচারী জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওই দোকান থেকে খাবার পানি নিয়েছিলেন শ্রমিক আলমগীর। ১টার দিকে হাঁটুপানিতে তাঁকে ভাসতে দেখেন তিনি।

শাবিপ্রবির প্রক্টর অধ্যাপক কামরুজ্জামান চৌধুরী জানান, গতকাল লেকের কাজের জন্য বৈদ্যুতিক মোটর দিয়ে পানি সরানো হচ্ছিল। ঘটনাস্থল এবং অন্যান্য দিক বিবেচনা করে ধারণা করা হচ্ছে, এই কাজের সময় বিদ্যুতায়িত হয়ে ওই শ্রমিক মারা গেছেন। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

জালালাবাদ থানার এসআই সারফিন আহমেদ বলেন, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে। এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি।

শাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে অধিকতর উন্নয়নের কাজ চলছে প্রায় ছয় বছর ধরে। মাঝেমধ্যেই এসব কাজে নিযুক্ত শ্রমিক দুর্ঘটনার শিকার হন। ২০২৩ সালের ১৮ জানুয়ারি নাইম আহমেদ নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন সিভিল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ওয়ার্কশপের দোতলায় কাজের সময় বাঁশের মাচা ভেঙে পড়ে তিনি মারা যান। এরপর ২২ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. এমএ ওয়াজেদ মিয়া আইআইসিটি ভবনের বর্ধিতাংশের নির্মাণকাজের সময় ৯ তলা থেকে পড়ে আরিফুল ইসলাম নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়।

গতকাল শ্রমিক আলমগীরের মৃত্যুর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। এ সময় তিনি বলেন, ওই শ্রমিকের পরিবারকে সহযোগিতা করা হবে। এ ঘটনা তদন্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুর ও পরিবেশ কৌশল বিভাগের অধ্যাপক মুশতাক আহমেদকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

×