ঢাকা বুধবার, ২২ মে ২০২৪

স্ত্রী-ছেলেকে কোপানোর পর শেষ করলেন নিজেকে

স্ত্রী-ছেলেকে কোপানোর পর শেষ করলেন নিজেকে

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ০৮:৫২

গোপালগঞ্জে স্ত্রী ও ছেলেকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার পর আত্মহত্যা করেছেন এক ব্যক্তি। তার নাম মনির মোল্লা (৫৫)। শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সদর উপজেলার রঘুনাথপুর ইউনিয়নের রঘুনাথপুর চরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মনিরের স্ত্রী তানজিলা বেগম (৪৫) ও ছেলে ইমদাদুল মোল্লাকে (২৩) আশঙ্কাজনক অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদিকে রোববার সকালে মনিরের লাশ উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে সদর থানা পুলিশ।

মনির মোল্লার মেয়ে রাফেজা জানান, রাতে স্ত্রীর সঙ্গে চিৎকার-চেচামেচি করছিলেন মনির। একপর্যায়ে স্ত্রীর গলা চেপে ধরেন। এ সময় ছেলে ইমদাদুল এসে ছাড়ানোর চেষ্টা করেন। তখন ঘরের মেঝেতে থাকা দা এনে ইমদাদুলের মাথায় কোপ দেন মনির। এর পর স্ত্রীকে কোপ দেন।

রাফেজা বলেন, 'আমরা মা ও ভাইকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়ার সময় বাবা দৌড়ে রান্নাঘরে গিয়ে বঁটি দিয়ে নিজের গলা কাটেন। পরে সেখানেই পড়ে থাকেন। আমরা চিৎকার দিলে লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।'

মনির মোল্লার ছোট মেয়ে মাফুজা বলেন, 'আব্বা বেশ কয়েক মাস ধরে সন্দেহজনক আচরণ করে আসছিলেন। একা একা বিড়বিড় করতেন। আমাদের সঙ্গে ভালোভাবে কথা বলতেন না। মানসিক চিকিৎসকের পরামর্শে তিন মাস থেকে তাকে ওষুধ খাওয়ানো হচ্ছিল। তাকে ফের ডাক্তার দেখানোর কথা ছিল। তার আগেই বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে গেল।'

গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, মনির মোল্লা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। স্ত্রী ও ছেলেকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছেন। পরে নিজে আত্মহত্যা করেন। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক শুনেছি।

আরও পড়ুন

×