পাকিস্তানের মধ্যস্থতায় আলোচনার উদ্যোগ সৌদি-ইরানের

প্রকাশ: ০৬ অক্টোবর ২০১৯     আপডেট: ০৬ অক্টোবর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

হাসান রুহানি (বায়ে) ও মোহাম্মদ বিন সালমান

নিজেদের মধ্যে যুদ্ধ এড়াতে আলোচনার পথে হাঁটছে মধ্যপ্রাচ্যের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী সৌদি আরব ও ইরান। পাকিস্তানের মধ্যস্থতায় দুই দেশের পক্ষ থেকেই এ ব্যাপারে ইতিবাচক উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

গত ১৯ ও ২০ সেপ্টেম্বর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সৌদি আরব সফর করেন। এ সময় রিয়াদ ও তেহরানের মধ্যে মধ্যস্থতার উদ্যোগ নিতে তাকে অনুরোধ করেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। 

ইরানের বিষয়ে যুবরাজ সালমান ইমরান খানকে বলেন, ‘আমি যুদ্ধ এড়াতে চাই।’ খবর নিউইয়র্ক টাইমসের

পরে নিউইয়র্কে সম্প্রতি শেষ হওয়া জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশন চলাকালে এ বিষয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে  কথা বলেনে ইমরান খান। এছাড়াও আলোচনার বিষয়ে রিয়াদের পক্ষ থেকে ইরাককেও অনুরোধ করা হয়েছে; তারাও যেন ইরানি নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন। 

রিয়াদের পক্ষ থেকে নিউইয়র্ক টাইমসের কাছে ইরানের সঙ্গে মধ্যস্থতার ব্যাপারে সৌদি আরবের পক্ষ থেকে পাকিস্তানের শরণাপন্ন হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে সরাসরি যুবরাজ সালমান এ অনুরোধ করেছেন বলে যে খবর বেরিয়েছে তা অস্বীকার করেছে রিয়াদ।

অন্যদিকে ইরান জানিয়েছে, সৌদির সঙ্গে আলোচনার ব্যাপারে তাদের কোনও আপত্তি নেই। আলোচনার জন্য তেহরানের অবস্থান উন্মুক্ত। সম্প্রতি এ বিষয়ে ইরানের স্পিকার আলী লারিজানি আল জাজিরাকে বলেন, সৌদি আরব এবং এ অঞ্চলের অন্যান্য দেশের সঙ্গে আলোচনার ব্যাপারে ইরান উন্মুক্ত। ইরান ও সৌদি আরবের সম্পর্ক মধ্যপ্রাচ্যের নিরাপত্তাজনিত ও রাজনৈতিক সমস্যা সমাধানে সক্ষম।