কারাবন্দি সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের মুক্তিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছে সুশীল সমাজ ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতার জন্য আন্দোলনকারী বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংগঠন। 

প্রধানমন্ত্রীর কাছে লেখা এক চিঠিতে কাজলের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের জন্য দায়ীদের জবাবদিহির আওতায় আনারও দাবি জানানো হয়েছে। এসব সংস্থার জোট আইএফইএক্সের ওয়েবসাইটে গতকাল ওই চিঠি প্রকাশ করা হয়েছে।

চিঠিতে সংগঠনগুলো বলেছে, কাজলের নিখোঁজ হওয়া, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা ও তাকে কারাবন্দি রাখার ঘটনায় তারা উদ্বিগ্ন। কাজলের রহস্যজনক নিখোঁজের পর তার বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া উদ্বেগজনক। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তিনটি ছাড়াও ৫৪ ধারায়ও তার বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে কাজলের স্বাস্থ্য নিয়েও গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। বলা হয়, কভিড মহামারির এই সময়ে কারাগারে তিনি ঝুঁকিতে রয়েছেন। কারাগারগুলো ফাঁকা করতে দেশের আদালত সাম্প্রতিক সময়ে ৪৫ হাজার বন্দিকে মুক্তি দিলেও কাজল এই সুযোগ পাননি। চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করা হয়, কাজলের জামিন আবেদনে রাষ্ট্রপক্ষ যাতে বিরোধিতা না করে সেই নির্দেশ যেন দেন তিনি। তাকে দ্রুত মুক্তি দেওয়ারও আবেদন জানানো হয়।

আর্টিকেল নাইনটিন, কার্টুনিস্টস রাইটস নেটওয়ার্ক ইন্টারন্যাশনাল (সিআরএনআই), কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে), ইলেকট্রনিক ফ্রন্টিয়ার ফাউন্ডেশন (ইএফএফ), ফ্রি মিডিয়া মুভমেন্ট, ফ্রিডম হাউস, গ্লোবাল ভয়েস অ্যাডভক্স, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ, ইনডেক্স অন সেন্সরশিপ, ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব জার্নালিস্টস (আইএফজে), ইন্টান্যাশনাল প্রেস ইনস্টিটিউট (আইপিআই), পেন আমেরিকা, পেন কানাডা, প্রাইভেসি ইন্টারন্যাশনাল, রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স (আরএসএফ), ওয়ার্ল্ড অ্যাসোসিয়েশন অব নিউজপেপারস অ্যান্ড নিউজ পাবলিশার্স এবং ফোরাম এশিয়ার পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।