ঢাকা শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

সুনাকের মন্ত্রিসভায় বরিস জনসনের ছায়া!

সুনাকের মন্ত্রিসভায় বরিস জনসনের ছায়া!

বরিস জনসন ও ঋষি সুনাক (ছবি-এনডিটিভি)

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৫ অক্টোবর ২০২২ | ২২:১১ | আপডেট: ২৫ অক্টোবর ২০২২ | ২২:১২

যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক তাঁর মন্ত্রিসভা ঢেলে সাজাচ্ছেন। নতুন মন্ত্রিসভায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পুরোনো মুখগুলোই ফিরে আসছে। 

গুরুত্বপূর্ণ পদে যারা নিয়োগ পেয়েছেন তাদের বেশিরভাগই সাবেক প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আমলেও ছিলেন। ডমিনিক রাব, জেমস ক্লেভারলি, গ্র্যান্ট শ্যাপস, বেন ওয়ালেস, স্টিভ বার্কলে, টেরেজা কফি সবাই ছিলেন জনসনের মন্ত্রিসভায়। সূত্র- বিবিসি

এ বিষয়ে বিরোধী লেবার পার্টি বলছে, নতুন সরকারে বরিস জনসন হয়তো প্রধানমন্ত্রী হয়ে ফেরেননি, কিন্তু তার মন্ত্রিসভা ফিরে এসেছে। সুনাকের মন্ত্রিসভার অনেকেই বরিস জনসনের মন্ত্রিসভারই পুরোনো মুখ।

মঙ্গলবার ঋষি সুনাক রাজা চার্লসের কাছ থেকে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নিয়োগ পান। রাজা তৃতীয় চার্লসের সঙ্গে সাক্ষাতের এক ঘণ্টার মধ্যেই নিজের মন্ত্রিসভার নাম ঘোষণা শুরু করেন সুনাক। পূর্বসূরি লিজ ট্রাসের মন্ত্রিসভার অনেক মন্ত্রী পদত্যাগ করেন। কাউকে কাউকে বরখাস্তও করেন। এ পর্যন্ত চারজন মন্ত্রীকে পদত্যাগ করতে বলেছেন ঋষি। তাদের মধ্যে আছেন, বাণিজ্যমন্ত্রী জ্যাকব রিস-মগ, বিচারমন্ত্রী ব্র্যান্ডন লুইস, কর্ম ও পেনশনমন্ত্রী ক্লো স্মিথ এবং উন্নয়নমন্ত্রী ভিকি ফোর্ড।

আবার কেউ কেউ টিকেও গেছেন। যেমন জেরেমি হান্ট। তিনি লিজ ট্রাস সরকারের অর্থমন্ত্রী ছিলেন হান্ট। নতুন মন্ত্রিসভাতেও একই পদে থাকছেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী পদেও থাকছেন জেমস ক্লেভারলি। আর ডমিনিক রাব নিয়োগ পেয়েছেন উপ-প্রধানমন্ত্রী ও বিচারমন্ত্রী পদে। সুয়েলা ব্রাভারম্যান সুনাকের মন্ত্রিসভাতেও থাকছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে। ট্রাসের আমলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গ্রান্ট শ্যাপস এবার হচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী। স্বাস্থ্যমন্ত্রী হচ্ছেন স্টিভ বার্কলে। কফি হচ্ছেন পরিবেশমন্ত্রী। প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে থেকে যাচ্ছেন বেন ওয়ালেসই। 

রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ঋষি সুনাক। ৫০ দিনের মধ্যে দেশটির তৃতীয় প্রধানমন্ত্রী হলেন তিনি। গতকাল মঙ্গলবার বাকিংহাম প্যালেসে রাজা চার্লসের সঙ্গে সাক্ষাতের পর আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি দায়িত্ব গ্রহণ করেন। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথম ভাষণে সুনাক যুক্তরাজ্যে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনার বিষয়ে প্রত্যয়ের কথা জানান। সেই সঙ্গে ঐক্যের ডাক দিয়ে বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে তাঁর কোনো দ্বন্দ্ব নেই।

সুনাকের দাদা-দাদি ভারতের পাঞ্জাব থেকে ব্রিটেনে গিয়েছিলেন। ভারতীয় শিল্পপতি নারায়ণমূর্তির মেয়েকে বিয়ে করেন তিনি। হিন্দু ধর্মাবলম্বী সুনাক ভগবদ্গীতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় তাঁর শ্বশুর ইনফোসিসের সহপ্রতিষ্ঠাতা নারায়ণমূর্তি বলেন, সুনাককে নিয়ে তিনি গর্বিত। তিনি তাঁর সাফল্য কামনা করেন।

আরও পড়ুন

×