চীনের উইকিপিডিয়া

প্রকাশ: ০৪ মে ২০১৭

সমকাল ডেস্ক

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় তথ্যভাণ্ডার উইকিপিডিয়ার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নিজস্ব 'উইকিপিডিয়া' চালু করতে যাচ্ছে চীন। নিজেদের জন্য আরও মানসম্পন্ন এবং নির্ভরযোগ্য বিকল্প ওই তথ্যভাণ্ডার আগামী বছর চালু হবে। এটি হবে মূলত দেশটির এনসাইক্লোপিডিয়ার অনলাইন সংস্করণ। এরপর থেকে দেশটির যে কেউ চাইলেই মনমতো বানোয়াট তথ্য পরিবেশন করে বিভ্রান্তি ছড়ানোর সুযোগ পাবে না। সে ক্ষেত্রে এটি হবে চীনের সাংস্কৃতিক মহাপ্রাচীর। খবর এএফপির। চীনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নতুন তথ্যভাণ্ডার বা এনসাইক্লোপিডিয়া তৈরিতে কাজ করছেন ২০ হাজার অভিজ্ঞ লেখক-প্রযুক্তিবিদ। তাদের এই তথ্যভাণ্ডারে থাকবে ৩ লাখ ফিচার, যার প্রত্যেকটি হবে এক হাজার শব্দের। ২০১৮ সাল নাগাদ এনসাইক্লোপিডিয়াটি অনলাইনে পাবেন চীনের নাগরিকরা। বর্তমানে চীনে উইকিপিডিয়া ব্রাউজ করা গেলেও এর অনেক ফিচার বন্ধ রাখা হয়েছে। চীনের নতুন উইকিপিডিয়া প্রকল্পের প্রধান সম্পাদক ইয়াং মুঝি বলেন, নতুন এই চায়নিজ এনসাইক্লোপিডিয়া হবে চীনের সংস্কৃতি রক্ষার বর্ম। ২১ শতকের চাহিদা পূরণ এবং চীনের নিজস্বতা রক্ষায় এই এনসাইক্লোপিডিয়াকে 'গ্রেট ওয়াল অব কালচার' বলা যেতেই পারে। তিনি জানান, চীনা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গবেষকরা এই তথ্যভাণ্ডার সমৃদ্ধ করার দায়িত্বে থাকবেন। যে কেউ এতে তথ্য প্রদান করতে পারবেন না। এমনকি সবাই সম্পাদনাও করতে পারবেন না এই চীনা উইকিপিডিয়া। ১৯৯৩ সালে প্রথম প্রিন্ট সংস্করণে বের হয় চীনের এনসাইক্লোপিডিয়া। ২০০৯ সালে প্রকাশিত হয় দ্বিতীয় সংস্করণ। তবে সমালোচকরা মনে করেন, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে সরকার এর অনেক তথ্য বাদ দিয়েছে বা বিকৃত করেছে। ২০১১ সালে এই তথ্যভাণ্ডারটি অনলাইনে নিয়ে আসা প্রকল্পে অনুমোদন দেয় চীন।