মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ীতে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে মাটি ভরাট করায় এক মাস ধরে বৃষ্টির পানিতে ডুবে আছে বাড়িঘরসহ রাস্তাঘাট। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে মানুষ। নৌকা নিয়ে স্কুলে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে সম্প্রতি। এতে ৭ ছাত্রী গুরুতর আহত হয়েছে। ১১ জুলাই বেলা ২টায় এ ঘটনা ঘটে। মুমূর্ষু অবস্থায় স্থানীয়রা ছাত্রছাত্রীদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

মাতারবাড়ীর ইউপি সদস্য রিয়াজ উদ্দীন বলেন, মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে মাটির বাঁধ দেওয়ায় পানি চলাচলের স্লুইসগেট বন্ধ হয়ে যায়। ফলে সাম্প্রতিক অতি বৃষ্টির কারণে কাঁচা ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট পানিতে ডুবে গেছে। ১১ জুলাই বুধবার বিকেলে মাতারবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা পরীক্ষা শেষে পুরান বাজার এলাকা থেকে নৌকাযোগে ফুলজান মোরায় বাড়ি ফেরার পথে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে।

পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে ডুবন্ত অবস্থা থেকে শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে।

মাতারবাড়ীর মানবাধিকার সুরক্ষা কর্মী হামেদ হোসাইন বলেন, 'কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পের অপরিকল্পিত মাটি ভরাট ও স্লুইসগেট বন্ধ থাকার ফলে ১৫টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে আছে। এই অবস্থা চলছে গত ৩ মাস ধরে। দ্রুত পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না করলে জনজীবনে ব্যাপক ক্ষতি হবে বলে জানান। পাশাপাশি মানুষের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হবে।

মাতারবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার মোহাম্মদ উলল্গাহ মানুষের কষ্টের কথা স্বীকার করে বলেন, 'সরকারের কাছে তদবির করছি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এই মাসেই পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা হবে।'

মন্তব্য করুন