যুগটাই এখন ফ্যাশন ও স্টাইলের। তবে সুন্দর পোশাক কিংবা স্টাইলিশ জুতাতেই কিন্তু এখন আর ফ্যাশন আটকে নেই। সাজপোশাকের সঙ্গে আকর্ষণীয় একটি ব্যাগও লুকে এনে দিতে পারে ভিন্ন চমক। প্রয়োজনীয় সামগ্রী বহন করার জন্য ব্যাগ অন্যতম জরুরি একটি অনুষঙ্গ। সেই সঙ্গে প্রয়োজনের পাশাপাশি সুন্দর ও স্মার্টব্যাগ স্টাইলটাকেও বাড়িয়ে দেয় দ্বিগুণ। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ফ্যাশনে এসেছে নানা পরিবর্তন। একসময় মেয়েরা খুব সাদামাটা ব্যাগ ব্যবহার করলেও এখন তা পাল্টেছে। ব্যাগের নকশা ও ধরনেও এসেছে বৈচিত্র্য। আকর্ষণীয় ডিজাইনের ছোট-বড় কিংবা মাঝারি সব ধরনের ব্যাগ চোখে পড়বে সুপারশপগুলোতে। পোশাকের সঙ্গে মানানসই এসব ব্যাগের রয়েছে অনেক সুবিধাও। ব্যাগের মধ্যে বেশি ব্যবহূত হচ্ছে এম-গিয়ার ব্যাকপ্যাক, টি-গিয়ার ব্যাকপ্যাক, এমা সার্কেল বেল্ট ব্যাগ, হ্যান্ড ব্যাগ, জুট ব্যাগ, মেসেঞ্জার ব্যাগ, বক্স ব্যাগ, ক্লাচ, স্লিং ব্যাগ ও ক্রসবডি ব্যাগ। ফ্যাশন ব্র্যান্ড গুটিপার স্বত্বাধিকারী তাসলিমা মিজি বলেন, আমাদের দেশের মেয়েরা মূলত টপ হ্যান্ডল ব্যাগ বেশি ব্যবহার করে। কেউ কেউ আবার লম্বা বেল্টের কাঁধে ঝোলানো ব্যাগও ব্যবহার করে। তবে ব্যাগের ফ্যাশনটি মূলত পশ্চিমা দেশের ট্রেন্ড দ্বারা বেশি প্রভাবিত। এ সময়ে ফ্যাশনে দেখা যাচ্ছে মেয়েরা লম্বা বেল্টের ক্রসবডি ব্যাগও প্রচুর ব্যবহার করে। ক্রসবডি ব্যাগের সুবিধা হলো ব্যবহারকারীরা বেশ আরামে রাস্তায় চলাফেরা করতে পারে এবং তাদের দু'হাত ব্যাগ-ফ্রি থাকাতে কাজকর্ম সহজে সারতেও পারে।

ফ্যাশনে ব্যাগ খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুষঙ্গ। একজন ফ্যাশন সচেতন মানুষ তার পোশাক-আশাকের সঙ্গে এখন ব্যাগটাও ফ্যাশনেবল হয় কিনা নিশ্চিত হতে চান।

তাসলিমা মিজি আরও বলেন, আমি কিছু বছর আগেও দেখেছি মেয়েরা ফ্যাশন বলতে খুব ট্রেন্ডি জামাকাপড় বুঝতেন, এখন তারা চান হাতের ব্যাগটাও যেন আকর্ষণীয় ও সুন্দর হয়। হাতের বা কাঁধের ব্যাগটা গায়ের জামাকাপড়ের সঙ্গে মানিয়েছে কিনা কিংবা দারুণ একটা কম্বিনেশন তৈরি করছে কিনা- সেটা নিশ্চিত হতে চান। এই প্রচলনটা দিনে দিনে একটু একটু করে বাড়ছে ফ্যাশনপ্রেমীদের কাছে।

একসময় ব্যাগের কালার বলতে মূলত কালোকেই বোঝানো হতো। এখন ফ্যাশনপ্রেমী মেয়েরা একটু রঙের বৈচিত্র্য পছন্দ করেন। রঙের প্রতি ভালোবাসাটা একদিকে ফ্যাশনশিল্পকে যেমন প্রভাবিত করছে, তেমনি ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিগুলোও তাদের অফার করছে নতুন নতুন কালার প্যালিট। তাই এখনকার ব্যাগের শোকেসিংগুলোর বৈচিত্র্য অনেক বেশি। পশ্চিমা দেশগুলোতে ফ্যাশনশিল্প একেকটা সিজনে একেকটা কালার প্যালিটকে গুরুত্ব দেয়, সেভাবেই ফ্যাশন সিজনে কালার ব্যবহারের ট্রেন্ড তৈরি হয়। আমাদের দেশে সেগুলোর প্রভাব বা প্রতিফলন ঘটতে দু-তিন বছর সময় বেশি লেগে যায়। তবুও বলতে পারি, তথ্যপ্রযুক্তির সহজলভ্যতার যুগে এই গ্যাপটি ধীরে ধীরে কমে আসছে। বর্তমান সময়ে ব্যাগের ফ্যাশনে বেগুনি, মাস্টার্ড, স্যান্ড, নেভি ব্লু কালারের প্রভাব একটু বেশি দেখা যাচ্ছে। কালো এবং ব্রাউন তো লেদার ব্যাগের একটি ঐতিহ্যবাহী রং, সেটির প্রভাব সবসময় লক্ষণীয়।

এবার আসা যাক ব্যাগ বাছাই প্রসঙ্গে। ব্যাগ বাছাইয়ের ক্ষেত্রে অবশ্যই মনে রাখতে হবে কোথায় এবং কী ধরনের কাজে ব্যাগটি ব্যবহার করা হবে। সব জায়গায় সব ধরনের ব্যাগ মানানসই নয়। সঙ্গে পোশাকের ব্যাপারটিও মাথায় রাখতে হবে। যেমন প্রতিদিনের ব্যবহারের জন্য এমন ব্যাগ বেছে নিন যেন প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো রাখা যায়। সেক্ষেত্রে ব্যাকপ্যাক, টোট ব্যাগ, হ্যান্ড ব্যাগ বেছে নিতে পারেন। অফিসের ব্যাগের বেলায় মাথায় রাখতে হবে যেন অবশ্যই অফিস পরিবেশের সঙ্গে খাপ খায়। লেদারের তৈরি ব্যাগগুলো বেশ টেকসই হয়। ল্যাপটপ থেকে শুরু করে সব জিনিসই ভালো রাখা যাবে, এমন ব্যাগ বেছে নিন।

স্লিং ব্যাগগুলো অনেক আগে থেকেই চলে আসছে। সব বয়সী নারীর কাছেই এটি বেশ জনপ্রিয়। জিন্স, ফতুয়া, কুর্তির সঙ্গে ভালো মানাবে। কোনো অনুষ্ঠানে নেওয়ার জন্য নানান ধরনের ক্লাচ ও বটুয়া বেশি জনপ্রিয়। একরঙা থেকে শুরু করে প্রিন্টেড কিংবা পাথর বসানো, কারচুপি করা, এমনকি হাতের কাজের ক্লাচ ও বটুয়া পোশাকের সঙ্গে বেছে নিতে পারেন অনায়াসেই। এ ছাড়া আমাদের দেশে পাটের তৈরি নানা ডিজাইনের ব্যাগ পাওয়া যায়। যা শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ বা ফতুয়ার সঙ্গে বেশ মানানসই। যারা একটু বাঙালিয়ানা ধাঁচ পছন্দ করেন তাদের কাছে কাপড়ের তৈরি ব্যাগ বেশ জনপ্রিয়। দেশি ফ্যাশন হাউসগুলোতে ঢুঁ মারলেই আপনি পেয়ে যাবেন কাপড়ের ব্যাগের সমাহার। প্যাচওয়ার্ক থেকে শুরু করে হাতের সেলাইয়ের কারুকাজ কিংবা পুঁতির ব্যাগগুলো চোখে পড়ার মতো।

যত্নে থাকুক ব্যাগ :ব্যাগ কেবল ফ্যাশন অনুষঙ্গই নয়, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সঙ্গে রাখার অতি গুরুত্বপূর্ণ সঙ্গীও। লেদার, জুট কিংবা কাপড়ের ব্যাগ হোক, দীর্ঘদিন ব্যবহার করতে চাইলে দরকার সঠিক যত্ন। বিশেষ করে এই বর্ষাকালে অবশ্যই ব্যাগের যত্ন নেওয়াটা জরুরি। তবে যত্ন অনেকটাই নির্ভর করে ব্যাগের ব্যবহারের ওপর। ঠিকমতো যত্ন করতে পারলে ব্যাগ অনেক দিন টেকে। কী উপাদানে তৈরি ব্যাগ, তার ওপরও নির্ভর করে ব্যাগের যত্ন। আকার-প্রকার, নকশার ভিন্নতা বুঝে ব্যাগের যত্ন নেওয়া জরুরি। জেনে নিই কিছু টিপস-

চামড়ার ব্যাগ :চামড়ার ব্যাগ এমনিতে বেশ টেকসই। কিন্তু বৃষ্টিতে বা পানি লেগে ভিজে গেলে কিংবা বদ্ধ অবস্থায় দীর্ঘদিন থাকলে ব্যাগের ওপর ছত্রাক পড়তে পারে। সেক্ষেত্রে সাবধানে শুকনো কাপড় দিয়ে ঘষে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে। নকশার খাজে ময়লা ঢুকে গেলে ব্রাশ দিয়ে আস্তে ঝেড়ে ফেলতে হবে। বেশি জোরে ঘষা যাবে না। চামড়ার ব্যাগ বদ্ধ জায়গায় না রেখে সেলোফিন কাগজে পেঁচিয়ে কোনো খোলামেলা জায়গায় রাখতে পারেন। পনেরো দিন পর পর আলো-হাওয়া পূর্ণ জায়গায় রাখুন। অ্যালকোহল বা স্পিরিট জাতীয় জিনিস দিয়ে কখনোই চামড়ার ব্যাগ পরিস্কার করবেন না। এতে রং নষ্ট হয়ে যায়।

নিত্যদিনের ব্যাগ:নিয়মিত ব্যবহারের ব্যাগে প্রতিদিনই একটু একটু করে ধুলা পড়ে বা ময়লা হয়। তাই বাইরে থেকে ফিরেই শুকনো কাপড় দিয়ে ঝেড়ে বা মুছে রাখতে হবে। বর্ষার মৌসুমে চামড়া বা কাপড়ের ব্যাগ ব্যবহার না করে, কৃত্রিম উপাদানে তৈরি ব্যাগ ব্যবহার করাই ভালো। কারণ, এ ধরনের ব্যাগ বৃষ্টির পানি লাগলেও সহজে নষ্ট হবে না।

কাপড়ের ব্যাগ : নাইলন ও বক্রমের মতো একটু শক্ত উপাদান আছে এমন কাপড়ের ব্যাগ কিনুন। সুতি কাপড়ের ব্যাগ ময়লা হলে ডিটারজেন্ট পাউডার বা শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে হালকা রোদে শুকাতে হবে। কারণ, কড়া রোদে রং নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

পাটের ব্যাগ : পাটের ব্যাগ রংবিহীন না কিনে রংচঙা কেনার চেষ্টা করুন। কারণ পাটের ব্যাগ ধুলে আগের সেই চাকচিক্য হারানোর আশঙ্কা থাকে। তাই ব্যাগের যে অংশে ময়লা লাগে, শুধু ওইটুকুই পরিস্কার করবেন।

পার্টি ব্যাগ : পুঁতি বসানো, পাথর, মুক্তা এবং বিভিন্ন উপকরণের নকশা থাকে এমন শৌখিন ব্যাগ পার্টিতে ব্যবহার করা হয়। এসব ব্যাগের যত্নও নিতে হয় একটু আলাদাভাবে। ব্যবহারের পর ছোট পার্সের ক্ষেত্রে টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে রাখতে হবে। বড় ব্যাগ হলে প্লাস্টিক বা পাতলা কাপড়ে মুড়িয়ে ড্রয়ারে তুলে রাখলে ভালো থাকবে।



পরামর্শ

= গুণগত মান যাচাই করে ব্যাগ কিনুন।

= ব্যাগ সবসময় শুকনো জায়গায় সংরক্ষণ করবেন। বদ্ধ ও স্যাঁতসেঁতে পরিবেশ ব্যাগের জন্য ক্ষতিকর।

=অনেক জিনিস রেখে ব্যাগ আটকানোর চেষ্টা করবেন না।

=পোকামাকড়ের উপদ্রব থেকে বাঁচতে ন্যাপথলিন ব্যবহার করুন।

= ব্যাগ সংরক্ষণের সময় ঝুলিয়ে না রাখাই ভালো।

= ব্যাগে সিলিকন প্যাকেট রাখতে পারেন। এগুলো আপনার ব্যাগকে শুস্ক এবং ছত্রাকমুক্ত রাখবে

মন্তব্য করুন